পেকুয়ায় ৭ মাস ধরে বেতন-ভাতা তুলছেন চাকরীচ্যূত গ্রাম পুলিশ সদস্য!

পেকুয়া প্রতিনিধি:
পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউপি’র এক গ্রাম পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে চাকরিচ্যূত হওয়ার পরেও ৭মাস ধরে নিয়মিত বেতন-ভাতা উত্তোলন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই সাথে গ্রাম পুলিশের ইউনিফর্ম পারিধান করে মাদক পরিবহন এবং এলাকার নিরীহ লোকজনকে বিভিন্ন ভয়-ভীতি দেখিয়ে হয়রানীর কথাও জানান স্থানীয়রা। অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ সদস্যের নাম আবদুর রহিম। সে স্থানীয় মৃত আকবর আহমদের পুত্র এবং ৭নং ওয়ার্ডের সাবেক গ্রাম পুলিশ সদস্য।

জানা গেছে, চেয়ারম্যান, সচিব ও মেম্বারদের আদেশ অমান্য, দায়িত্ব-কর্তব্য পালনে অবহেলাসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িত থাকার দায়ে বিগত ১৯/১১/১৫ইং তারিখে উক্ত সদস্যকে সম্পূর্ণরূপে বরখাস্ত করা হয়। যার অনুলিপি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষকে প্রেরণ করা হয়। কিন্তু এর পরেও উক্ত গ্রাম পুলিশ পেকুয়া উপজেলা প্রশাসনের অসাধু কর্মচারীদের সাথে আঁতাত করে অবৈধভাবে হাতিয়ে নিচ্ছেন মাসিক বেতন-ভাতা।

মগনামা ইউপি’র চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম বলেন, বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার দায়ে আমার পূর্ববর্তী চেয়ারম্যান শহিদুল মোস্তাফা ওই গ্রাম পুলিশ সদস্যতে বহিষ্কার করে। দীর্ঘদিন সে তার ব্যবহৃত পোষাক-সরঞ্জাম ফেরত না দিয়ে বিভিন্ন অপরাধ করে যাচ্ছে। যার দরূণ আমি গতকাল(৩০জুন) তাকে পোষাক-সরঞ্জাম ফেরত দিতে অবহিতকরণ নোটিশ প্রদান করেছি। যার অনুলিপি সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।

পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মারুফুর রশীদ খান আমাদের রামু ডটকমকে বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।