৬ বছর পর ফাইনালে আবাহনী

ক্রীড়া প্রতিবেদক :

সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় শুরু ম্যাচ। ফ্লাড লাইটের আলোতে খেলা। গরমের তীব্রতা কম। উভয় দলের খেলোয়াড়রাও বেশ ক্রীড়া নৈপুণ্য প্রদর্শন করলেন।

মাঠে দর্শকদের উপস্থিতি এই টুর্নামেন্টের অন্য যে কোনো ম্যাচের চেয়ে বেশি। হওয়াটাই স্বাভাবিক। ওয়ালটন ফেডারেশন কাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে সন্ধ্যায় মুখোমুখি হয়েছিল যে ঐতিহ্যবাহী ঢাকা আবাহনী ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র।

শক্তিমত্তায় উভয় দল কাছাকাছি পর্যায়ের হলেও একটি দলকে হারতে হয়েছে। বিদায় নেওয়া দলটির নাম শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। আর ফাইনালে ওঠা দলটির নাম হয়তো ঘটা করে বলতে হবে না।

শুক্রবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেখ রাসেলকে ২-১ গোলে হারিয়ে ৬ বছর পর ফেডারেশন কাপের ফাইনালে উঠেছে আকাশী-নীল জার্সিধারীরা। ২০১০ সালে সবশেষ তারা ফেডারেশন কাপের ফাইনাল খেলেছিল।

শুক্রবার অবশ্য এগিয়ে যেতে বেশি সময় নেয়নি আবাহনী। ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই ওয়ালি ফয়সালের সহায়তায় গোল করেন আবাহনীর সেনেগালের ফরোয়ার্ড সারা চামারা (১-০)। ৩৪ মিনিটে সানডে সিজোবা বল নিয়ে ঢুকে পড়েন শেখ রাসেলের ডি বক্সে। দুজন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে জোরালো শট নেন। কিন্তু বলটি বারের পাশ ঘেঁষে চলে যায় বাইরে। চামারার গোলে এগিয়ে থেকেই বিশ্রামে যায় জর্জ কোটানের শিষ্যরা।

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের ৫২ মিনিটে কর্নার পায় শেখ রাসেল। কিক নেন আতিকুর রহমান মিশু। তার শটটি গোলপোস্টের থেকে খানিকটা দূরে ভেসে যায়। সেখান থেকে বল ডি বক্সের মধ্যে পাঠান শেখ রাসেলের একজন খেলোয়াড়। ভেসে আসা বলে কিক নেন রাসেলের ক্যামেরুনিয়ান খেলোয়াড় জিয়ান জে. ইকাঙ্গা। বলটি বারের ওপর দিয়ে চলে যায়।

৬৩ মিনিটে ম্যাচে সমতা ফেরান শেখ রাসেলের মো. রুম্মন হাসান। বল নিয়ে তিনি আবাহনীর ডি বক্সে ঢুকে পড়েন। আবাহনীর গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেল কিছুটা এগিয়ে আসেন। তাকে ফাঁকি দিয়ে আলতো টোকায় বল জালে জড়ান রুম্মন (১-১)। আবাহনী গোলরক্ষক ও রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না।

৬৮ মিনিটে শেখ রাসেলের ডি বক্সের বাইরে বল পেয়ে যান আবাহনীর নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে সিজোবা। বাঁ প্রান্ত দিয়ে বল নিয়ে ডি বক্সের মধ্যে ঢুকেই শট নেন। বল শেখ রাসেলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ও গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে ভেসে গিয়ে জালে আশ্রয় নেয় (২-১)।

এরপর অবশ্য উভয় দল আরো বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করেছিল। কিন্তু তার কোনোটিই গোল হিসেবে ধরা দেয়নি। ফলে ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আবাহনী।

এবারের ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের শিরোপা জিতে নিয়েছে আবাহনী লিমিটেড। এবার ওয়ালটন ফেডারেশন কাপের শিরোপাও তারা শোকেসে তুলতে পারে কি না, সেটাই এখন দেখার বিষয়। শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে সোমবার আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের মুখোমুখি হবে তারা।

[সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন]