রামুতে বিশাল পথ সভায় নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজ উল আলমঃ উন্নয়ন নিশ্চিত করতে নৌকায় ভোট দিন

সোয়েব সাঈদ, রামুঃ
রামু উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী, বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও যুবলীগ সভাপতি রিয়াজ উল আলম বলেছেন, নৌকা শেখ হাসিনার প্রতীক। নৌকা উন্নয়নেরও প্রতীক। এজন্য আগামী ২৪ মার্চ রামু উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে গণরায় দিয়ে উন্নয়নের অগ্রদূত শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে রামুতে চলমান উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে।
তিনি বলেন, ৫ বছর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে অনিয়ম-দূর্নীতিকে পশ্রয় দিইনি। কারো সাথে কোন অবৈধ লেনদেন করিনি। কাউকে জেনেশুনে হয়রানি করিনি। এখন যারা দলের নাম ব্যবহার করে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে তথা দলের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে নির্বাচন করছে তারা জনবিচ্ছিন্ন। এলাকার উন্নয়ন কিংবা সুখে-দুখে এদের দেখা যায় না। নির্বাচন এলেই তারা ক্ষমতার লোভে মরিয়া হয়ে উঠে। অতীতে জামানত হারানো প্রার্থী নির্বাচনের নামে আওয়ামীলীগের সুনাম ক্ষুন্ন করে যাচ্ছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দূর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে। উন্নয়নের মাধ্যমে স্বাধীনতার স্বপ্ন সফল করার এ পথ চলায় দেশের প্রতিটি মানুষকে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আওয়ামীলীগের সাথে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) বিকালে রামু চৌমুহনী স্টেশনে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজ উল আলমের সমর্থনে আয়োজিত বিশাল পথ সভায় এসব কথা বলেন রিয়াজ উল আলম।

চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার জেলা পরিষদ সদস্য শামশুল আলম চেয়ারম্যান ও নুরুল হক কোম্পানী, ফতেখাঁরকুল ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, গর্জনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুচ ভূট্টো, জোয়ারিয়ানালা ইউপি চেয়ারম্যান কামাল শামসুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স, ঈদগড় ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমদ ভূট্টো, কচ্ছপিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইসমাইল মো. নোমান, কাউয়ারখোপ ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, রাজারকুল ইউপি চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান, রশিদনগর ইউপি চেয়ারম্যান এমডি শাহ আলম, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো, খুনিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আবদুল গনি চেয়ারম্যান, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমএম নুরুচ ছাফা প্রমূখ।

পথ সভা হলেও এটি পরিনত হয় জনসমুদ্রে। দুপুরের পর থেকে উপজেলার ১১ ইউনিয়নের তৃণমূল এলাকার সর্বস্তুরের জনতা মিছিল ও বাদ্য-বাজনা সহকারে পথ সভাস্থলে আসতে শুরু করে। বিকাল গড়াতে পুরো স্টেশন ও আশপাশের এলাকা পরিনত হয় জনতার সমুদ্রে।

রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিকের সঞ্চালনায় সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, রামু উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নীতিশ বড়ুয়া, রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি এডভোকেট মোজাফ্ফর আহমদ হেলালী, সহ সভাপতি ওসমান সরওয়ার মামুন ও আবছার কামাল সিকদার, আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ মো. আবদুস শুক্কুর, গর্জনিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ফরিদ আহমদ চৌধুরী, রাজারকুল আওয়ামীলীগ নেতা জহির সিকদার, জেলা যুবলীগ নেতা পলক বড়ুয়া আপ্পু, যুবলীগ নেতা ইসকান্দর মীর্জা, মাসুদুর রহমান, নবীউল হক আরকান ও ওসমান গনি, সাংসদ কমলের একান্ত সচিব ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মিজানুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সম্পাদক, সাংসদ কমলের একান্ত সচিব আবু বক্কর ছিদ্দিক, গর্জনিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি হাফেজ আহমদ, কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন সোহেল সিকদার, যুবলীগ নেতা এম সেলিম, রশিদনগর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক মিজানুল করিম, খুনিয়াপালং ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ বিদ্যুৎ মেম্বার, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আনছারুল আলম, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি নুরুল ইসলাম নাহিদ, সাধারণ সম্পাদক মনজুর আলম সোহেল, ছাত্রলীগ নেতা মোহাম্মদ নোমান প্রমূখ। শুরুতে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত করেন ডা. মো. আবদুল্লাহ।

পথসভায় জনপ্রতিনিধি, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ছাড়াও রামু উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, শ্রমিকলীগ, সৈনিকলীগ, তাঁতীলীগ, বঙ্গবন্ধু ছাত্রপরিষদসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের হাজার হাজার জনতা উপস্থিত ছিলেন।