তোমরাই বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবে : রাষ্ট্রপতি

অনলাইন ডেস্কঃ
রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, স্কাউট আন্দোলন শিশু-কিশোরদের চারিত্রিক গুণাবলি বিকাশে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লেখাপড়ার পাশাপাশি সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিজেদের সম্পৃক্ত করার মানসিকতা তৈরিতে স্কাউটিংয়ের ভূমিকা অনন্য।

তিনি বলেন, স্কাউটরা নিয়মিত সমাজসেবামূলক কাজের পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা ও আর্তমানবতার সেবায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলছে। বাংলাদেশকে আরও সুন্দর করে গড়ে তুলতে স্কাউটরা রাখতে পারে অগ্রণী ভূমিকা। বিশেষ করে শিশু-কিশোর ও যুবাদের মাদক, ধর্মান্ধতা, সাম্প্রদায়িতকতা, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিষবাষ্প থেকে নিরাপদ এবং দূরে রাখতে স্কাউটিং ইতিবাচক অবদান রাখতে পারে।

রোববার গাজীপুরের মৌচাকে ১০ম বাংলাদেশ ও তৃতীয় সানসো জাম্বুরির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। সরকারের যুগোপযোগী পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের ফলে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে নিম্ন-মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। পেয়েছে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ার স্বীকৃতি। উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে নতুন প্রজন্মকে দক্ষ ও মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। বাংলাদেশের চলমান অগ্রযাত্রায় নেতৃত্বদানের জন্য আগামী প্রজন্মকে স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করতে আমি স্কাউট নেতাদের প্রতি আহ্বান জানাই।

তিনি বলেন, স্কাউটরা নিয়মিত সমাজসেবামূলক কাজের পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা ও আর্তমানবতার সেবায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলছে। স্কাউটরা সৃষ্টিকর্তা ও দেশের প্রতি কর্তব্য পালন করতে এবং সর্বদা একে-অপরকে সাহায্য করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে স্কাউট আন্দোলনে যোগ দেয়। সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড, বৃক্ষরোপণ, পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, জলবায়ু উষ্ণতারোধে জনসচেতনতা তৈরি, বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, ভবন ধস ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় উদ্ধার কাজসহ জাতীয় দুর্যোগে সবার আগে এগিয়ে আসে স্কাউটরা।

স্কাউটদের উদ্দেশে রাষ্ট্রপতি বলেন, তোমাদের এই সেবাধর্মী কার্যক্রম ভবিষ্যতে আরও বিস্তৃতি লাভ করবে বলে আমি আশা করি। তোমাদের অবস্থান হবে মাদকের বিরুদ্ধে ও সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে। অন্তরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, দেশপ্রেমে দেশের মানুষের প্রতি কর্তব্য ও মমত্ববোধ সবসময় জাগ্রত রাখতে হবে। নিজেরা ভালো কাজ করবে এবং অন্যদেরকেও ভালো কাজে অংশগ্রহণের আহ্বান জানাবে। আগামী দিনে তোমরাই বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবে। তোমরাই জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণ করবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ স্কাউটসের সভাপতি মো. আবুল কালাম আজাদ, জাম্বুরি চিফ ও বাংলাদেশ স্কাউটসের প্রধান জাতীয় কমিশনার ড. মো. মোজাম্মেল হক খান ও জাম্বুরি সাংগঠনিক কমিটির সভাপতি আখতারুজ জামান খান কবির প্রমুখ।