টানা বর্ষণে চকরিয়ার মাতামুহুরীতে বেড়েছে পানি হুমকির মূখে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেঁড়িবাঁধ

নিজস্ব প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের চকরিয়ায় পবিত্র রমজানে টানা ভারী বর্ষণে মাতামুহুরী নদীতে বেড়েছে পাহাড়ি ঢলের পানি প্রবাহ। বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকার ফলে রবিবার সকাল থেকে উপজেলা ও পৌরসভার প্রায় নীচু এলাকা পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এতে করে উপজেলায় বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। অব্যাহত বৃষ্টিপাত ও নদীর পানির চাপে উপজেলা ও পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। সকাল থেকে বৃষ্টি হলে ও বিকাল ৪ টার দিকে সামান্য রোদের দেখা মিলে।

এদিকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাহেদুল ইসলাম, পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো.আহসান উল্লাহ প্লাবিত এলাকা পরির্দশন করেছেন। পরির্দশনকালে পৌরসভার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী প্রিয় চট্টগ্রামকে বলেন, টানা ভারী বর্ষণের কারনে পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের নীচু এলাকা কয়েক ফুট পানিতে তলিয়ে গেছে। মাতামুহুরী নদীতে পাহাড়ি ঢলের পানি বেড়ে যাওয়ায় বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। চরম হুমকির মুখে রয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রনাধীন পৌরশহর রক্ষা বাঁধ।

মেয়র বলেন, বৃষ্টিপাতের ফলে জমে থাকা পানির কারনে পৌরসভার জলাবদ্ধতার শিকার এলাকা গুলো বিশেষ করে পরির্দশন করে তাৎক্ষনিক জলাবদ্ধতা নিরশনের জন্য ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
পৌরসভার সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সকাল থেকে ভরাট নালা নর্দমা নিস্কাশনের কাজ শুরু করেছেন।

সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল বলেন,তিনদিনের টানা ভারী বর্ষণে ইউনিয়নের বেশির ভাগ গ্রামীণ রাস্তাঘাট ভেঙ্গে নষ্ট হয়ে গেছে। এতে করে জনগনের চলাচলে চরম ভোগান্তি বেড়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো.আহসান উল্লাহ বলেন, টানা বৃষ্টিপাতের কারনে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। বেশির ভাগ ইউনিয়নে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ পানিতে তলিয়ে গেছে। তবে ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি এখনো জানা সম্ভব হয়নি।