ঢাকাবাসী নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাবে ২০২২ সালে

অনলাইন ডেস্কঃ
ঢাকার বাসিন্দাদের নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আনতে চায় সরকার। এ লক্ষ্যে ঢাকার বেশির ভাগ এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণকারী ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি) একটি বড় প্রকল্প হাতে নিয়েছে।

ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান বলছেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ২০৩০ সাল পর্যন্ত ঢাকার মানুষ নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আসবে।
প্রকল্পটি ২০১৯ সাল থেকে ২০২২ সালের মধ্যে বাস্তবায়নের সময় নির্ধারণ করে পরিকল্পনা কমিশনে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে।

বিদ্যুৎ বিভাগ জানায়, সরকারের গত দুই মেয়াদে বিদ্যুতের উৎপাদন, সঞ্চালন এবং বিতরণ ব্যবস্থার পরিবর্তন হয়েছে। তবে এখনও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সুবিধা পাওয়া সম্ভব হয়নি। এজন্য সরকার আরও কিছুদিন সময় চাইছে। তবে আর কত দিন নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের জন্য অপেক্ষা করতে হবে, সেই সময় বেঁধে দেওয়া হয়নি।

বলা হচ্ছে, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে হলে এখন বিতরণ কোম্পানিকে তাদের সরবরাহ ব্যবস্থা উন্নত করতে হবে। রাজধানীতে ডিপিডিসি ছাড়াও ঢাকা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো) সেই উদ্যোগ নিয়েছে।

ডিপিডিসি সূত্র জানিয়েছে, সরকারের ভিশন ২০২১ বাস্তবায়ন ও ২০৩০ সাল পর্যন্ত বিদ্যুতের চাহিদা অনুযায়ী নিরবচ্ছিন্ন ও মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে বিতরণ ব্যবস্থার সক্ষমতার নিরূপনের জন্য একটি সম্ভাব্যতা জরিপ করা হয়। এই জরিপের ভিত্তিতে ২০৩০ সাল পর্যন্ত ডিপিডিসির আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণের জন্য ১ হাজার ৯৫৭ কোটি টাকা ব্যয়ের প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন ১ হাজার ৮৮২ কোটি টাকা, বাকি ৭৮ কোটি টাকা ডিপিডিসির।

ডিপিডিসি সূত্র জানায়, এই প্রকল্পের অধীনে ৩৩১১ কেভি ক্ষমতার ১৫টি ট্রান্সফরমার, ১৯৭টি ৩৩ ও ১১ কেভি জিআইএস ব্রেকার, ১৬৫ কিলোমিটার ৩৩ কেভি সোর্স লাইন, ৩৩ হাজার ১৫৭টি ১৫ ও ১২ মিটার পোল, ১ হাজার ৪৯৩ কিলোমিটার নতুন ওভারহেড বিতরণ লাইন, ১ হাজার ৪৬২ কিলোমিটার ওভারহেড লাইন রেনোভেশন, ৩৬১ কিলোমিটার নতুন আন্ডারগ্রাউন্ড ১১ কেভি লাইন এবং ২ হাজার ৫৭৫টি ১১০.৪ কেভি বিতরণ ট্রান্সফরমার স্থাপন করা হবে।

ডিপিডিসির পরিচালক (অপারেশন) হারুন অর রশিদ বলেন, ‘এই প্রকল্পের মাধ্যমে ডিপিডিসির এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও ক্ষমতা বাড়বে, গ্রাহককে মানসম্পন্ন ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করার মাধ্যমে বাণিজ্যিক সেবার দেওয়ার গুণগত মান নিশ্চিত করা হবে।’
জানা গেছে, উত্তর, দক্ষিণ ও কেন্দ্রীয় জোনের অধীন ঢাকা এবং নারায়ণগঞ্জ এলাকায় এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। ঢাকায় বিদ্যুতের চাহিদা বছরে গড়ে ১২ ভাগ হারে বাড়ছে। এই ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণে বিদ্যুতের উৎপাদন বাড়ানো যেমন প্রয়োজন তেমনি বিতরণ ব্যবস্থাও উন্নয়ন দরকার। তাই এই প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।

বর্তমানে ডিপিডিসির আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুতের সর্বোচ্চ চাহিদা ১ হাজার ৫৩১ মেগাওয়াট এবং গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ১১ লাখ ৭৮ হাজার। এই গ্রাহকের বিপরীতে এবং নতুন সংযোগের কারণে ডিপিডিসি এলাকায় বিদ্যুতের চাহিদা বছরে ১২ ভাগ হারে বাড়ছে।

বিদ্যুৎ বিভাগের একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়ানোসহ এ খাতের সার্বিক ও সুষম উন্নয়নে স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘমেয়াদি বিভিন্ন পরিকল্পনার পাশাপাশি উৎপাদিত বিদ্যুৎ গ্রাহকপ্রান্তে সুষ্ঠু ও নিরবচ্ছিন্নভাবে সরবরাহের লক্ষ্যে বিতরণ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনা ও কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।’

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন