রাখাইনে বিদ্রোহীদের দমন করবে মিয়ানমার

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
রাখাইনে গত সপ্তাহে চার পুলিশ স্টেশনে বিদ্রোহী হামলার পর সেখানে সেনা অভিযান চালিয়ে জাতিগত বিদ্রোহীদের দমনের উদ্যোগ নিচ্ছে মিয়ানমার।

মিয়ানমার সরকারের নেত্রী অং সান সু চি পুলিশের ওপর ওই হামলার বিষয়টি নিয়ে সামরিক প্রধানের সঙ্গে সোমবার বৈঠক করেছেন এবং সু চি’র প্রশাসন সশস্ত্র বাহিনীকে বিদ্রোহীদের দমন করার নির্দেশ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন সরকারের মুখপাত্র জ হাতয়।

তিনি বলেন, সু চি, প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট এবং মন্ত্রিসভার অন্যান্য সদস্যরা সেনাপ্রধান মিন অং হ্লায়িং, তার উপপ্রধান এবং সেনা গোয়েন্দাপ্রধানসহ সামরিক নেতাদের সঙ্গে জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্র বিষয়ক আলোচনার জন্য বৈঠক করেছেন।

রাজধানী নিপিধোতে এক সংবাদ সম্মেলনে হাতয় বলেন, “প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে সামরিক বাহিনীকে সন্ত্রাসীদের দমন করার জন্য অভিযান শুরুর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।”

গোলযোগপূর্ণ রাখাইন রাজ্যে সম্প্রতি কয়েক সপ্তাহে বৌদ্ধ সশস্ত্র গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে।

সংখ্যালঘু নৃগোষ্ঠীগুলোর বৃহত্তর সায়ত্ত্বশাসনের দাবিতে বেশ কয়েকটি সশস্ত্র গোষ্ঠী মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সঙ্গে লড়াই করছে। এদের মধ্যে আরাকান আর্মি অন্যতম।

জাতিসংঘের হিসাবমতে, রাখাইনে বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সঙ্গে সরকারের লড়াইয়ে ডিসেম্বরের শুরু থেকে হাজার হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

এর আগে ২০১৭ সালে রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিম বিদ্রোহীদের এক হামলার পর তাদের ওপর সেনা বাহিনীর দমনপীড়ন শুরু হলে লাখো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে।

মিয়ানমারের রাখাইনে জাতিগত বিদ্রোহীদের সঙ্গে পুলিশের সর্বশেষ সংঘর্ষটি হয়েছে গত শুক্রবারে দেশটির স্বাধীনতা দিবসে।

কর্তৃপক্ষ এ হামলায় ১৩ পুলিশ কর্মকর্তা নিহত এবং ৯ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে। ওদিকে, আরাকান আর্মি তাদের তিন যোদ্ধা নিহত হওয়ার কথা জানায় এবং সেনাবাহিনী পুলিশ স্টেশনকে ঘাঁটি হিসাবে ব্যবহার করেছে বলে অভিযোগ করে।

সূত্রঃ বিডিনিউজ