খুনিয়া পালংয়ে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ

 হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী,

খুনিয়া পালং থেকে ফিরে :

উখিয়া উপজেলার সীমান্তবর্তী রামুর খুনিয়া পালং ইউনিয়ন (ইউপি) পরিষদ নির্বাচনে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত প্রতিটি ভোটকেন্দ্র ব্যাপক উপস্থিতি দেখা যায়। তবে বিকেলের পর থেকে ভোটকেন্দ্র ভোটার শূণ্য হয়ে পড়ে। সকাল ১১টায় খুনিয়া পালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে গিয়ে দেখা যায়, নারী ভোটারের দীর্ঘ লাইন। তাঁরা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নিজেদের ভোট দিচ্ছেন পছন্দের প্রার্থীকে।এসময় ভোটার রহিমা খাতুন বলেন, সকাল ১০টায় লাইনে দাঁড়িয়েছি। শান্তিপূর্ণ ভোট হচ্ছে।

সকাল সাড়ে ১১টায় ধেচুয়া পালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেখা যায় নারী পুরুষের দীর্ঘ সাঁরি। এ কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার বেলাল আহমদ আমাদের রামু ডটকমকে বলেন, শান্তিপূর্ণ ভোট চলছে। কেন্দ্রের একটি বুথে এক ঘন্টায় প্রায় শতাধিক ভোটার ভোট দিয়েছেন।

বেলা সোয়া ১২টায় ধোঁয়া পালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় তিন শতাধিক নারী-পুরুষ পৃথক লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন। কেন্দ্রে গিয়ে কথা হয় ভোটার আবদুর রহিমের সঙ্গে। তিনি বলেন, পরিবারের চার সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে তিনি ভোট দিতে কেন্দ্রে গেছেন। সুষ্ঠুভাবে ভোট হওয়ায় তাঁরাও খুশী।

তবে নির্বাচনের আগেরদিন রাতে ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য পদপ্রার্থী ও ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মোস্তাক আহমদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। যদিও বা ওই সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের দাবি তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী লোকজন এ হামলা চালিয়েছে। এছাড়াও নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইউনিয়নের বেশ কিছু জায়গায় বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।