রামুর ৬ ইউনিয়নে ভোট উৎসব আজ:শংকায় ভোটাররা

 সোয়েব সাঈদ:

আজ শনিবার (৪ জুন) কক্সবাজারের রামু উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আজ সকাল ৮টা থেকে ৪টা পর্যন্ত ইউনিয়নের ওয়ার্ড ভিত্তিক কেন্দ্রে ভোট দিবেন ভোটাররা। দিনের শেষে কে হাসবেন বিজয়ের হাসি। প্রথম বারের দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা বেশ উৎফুল্ল।

আজ অনুষ্ঠিত রামুতে দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্বাচন। প্রথম পর্যায়ের নির্বাচনে উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা একটিতেও জয় পায়নি। বিএনপি একটি ইউনিয়নে জয় পেলেও অপর চার ইউনিয়নেই বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামীলীগের মনোনয়ন বঞ্চিত প্রার্থীরা। প্রথম পর্যায়ের পাঁচ ইউনিয়নের নির্বাচনের ফলাফলে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি দু’দলের নেতাকর্মীরা ষষ্ঠ দফার এ নির্বাচন নিয়ে মহা টেনশনে সময় অতিবাহিত করছেন।

মর্যাদার লড়াইয়ে এ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ, বিএনপি বা বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচিত হবেন ভোটাররা চেয়ে আছেন সেদিকে। তবে ভোটাররা রামুতে সংহিসতা ছাড়া শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহন সম্পন্ন করার জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন। রামুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সমন্বয়ক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিনা কাজী আমাদের রামু ডটকমকে জানিয়েছেন, পঞ্চম ধাপের নির্বাচনের মতো ষষ্ঠ ধাপের নির্বাচনও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, বিজিবি ও আনসার-ভিডিপি সদস্য সমন্বয়ে নির্বাচনে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে সজাগ রাখা হয়েছে। নির্বাচন চলাকালীন যেকোন অপ্রীতিকর ঘটনা কঠোরভাবে মোকাবেলা করা হবে। প্রার্থীরা প্রতিপক্ষের বাড়ির কাছের কেন্দ্রকে ঝুকিপূর্ণ বলে অভিযোগ করলেও আমরা মনে করি, কোন কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ নয়। তবুও আইন প্রয়োগকারী বাহিনী প্রতিটি কেন্দ্রের উপর সজাগ দৃষ্টি রেখেছেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ বেদারুল ইসলাম আমাদের রামু ডটকমকে জানান, ষষ্ঠ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রামু উপজেলার ফতেখাঁরকুল, জোয়ারিয়ানালা, রাজারকুল, দক্ষিণ মিঠাছড়ি, খুনিয়াপালং ও চাকমারকুল ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ষষ্ঠ ধাপে রামু উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নিবার্চনে ২৯ জন চেয়ারম্যান, ৫৯ জন সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য ও ২১৩ জন সাধারণ সদস্য পদপ্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ৬টি ইউনিয়নে ৯১ হাজার ৮৮৪ জন ভোটার রয়েছেন। নির্বাচনে ৬ টি ইউনিয়নের ৫৪টি ভোট কেন্দ্রে ৫৪ জন প্রিসাইডিং অফিসার, ২৬৬ জন সহকারি প্রিসাইডিং অফিসার এবং ৫৩২ জন পোলিং অফিসার নিয়োগ নিয়োজিত থাকবেন।

ফতেখাঁরকুল:

রামুর সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ইউনিয়ন সদর ফতেখাঁরকুল। এ ইউনিয়নে ১৯ হাজার ৯৪৪ জন ভোটারের মধ্যে ১০ হাজার ২৬৬ জন পুরুষ ও ৯ হাজার ৬৭৮ জন মহিলা। ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ফরিদুল আলম (নৌকা), আবুল বশর বাবু (ধানের শীষ), শামীম আহসান ভুলু (কুঁড়ে ঘর) ও সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ১ নং ওয়ার্ডে আফসানা জেসমিন পপি (মাইক), তছলিমা আকতার লিপি (সুর্যমূখি ফুল) ও সাবেকুন নাহার (বক), ২ নং ওয়ার্ডে নুরুন্নাহার বেগম (তালগাছ) ও মনোয়ারা ইসলাম নেভী (বই), ৩ নং ওয়ার্ডে বেবী বড়ুয়া (কলম), রাবেয়া বসরী রাবু (মাইক), রাশেদা খানম (বই) এবং সাধারণ আসনের সদস্য পদে ১ নং ওয়ার্ডে আবদুল আজিজ (টিউবওয়েল), জাফর আলম (তালা) ও মোস্তাক আহমদ (ফুটবল), ২ নং ওয়ার্ডে কমরুদ্দিন (ফুটবল), ছালামত উল্লাহ (তালা), জয়নাল আবেদিন (মোরগ), মো. আবুল বশর (টিউবওয়েল), ৩ নং ওয়ার্ডে এসএম মোর্শেদ আলম (টিউবওয়েল), মোস্তাক আহমদ (তালা), মো. ছৈয়দুর রহমান (বৈদ্যুতিক পাখা), মো. ফরহাদ হোসেন (আপেল), শামসুল হুদা (ফুটবল), ৪ নং ওয়ার্ডে গফুর মিয়া (তালা), নুর আহমদ (মোরগ), মোহাম্মদ রফিক (টিউবওয়েল), ৫ নং ওয়ার্ডে আবদুল হাকিম (আপেল), মোহাম্মদ আমিনুল হক চৌধুরী (ফুটবল), মো. ইউনুচ (তালা), সাগর বড়ুয়া (মোরগ), সন্তোষ বড়ুয়া (টিউবওয়েল), শিমু বড়ুয়া (বৈদ্যুতিক পাখা), ৬ নং ওয়ার্ডে কামাল উদ্দিন (বৈদ্যুতিক পাখা), শাহজালাল মিয়া (ফুটবল), সুজশ বড়ুয়া (তালা), ৭ নং ওয়ার্ডে অরুপ বড়ুয়া (বৈদ্যুতিক পাখা), মো. ইকবাল (তালা), লিটন বড়ুয়া (মোরগ), ৮ নং ওয়ার্ডে জহির উদ্দিন (টিউবওয়েল), দিদারুল আলম (তালা), রোকন উদ্দিন (মোরগ), ৯ নং ওয়ার্ডে জাফর আলম (মোরগ), নুরুল হাশেম (টিউবওয়েল), ফয়েজুল ইসলাম (তালা), মনির আহমদ (বৈদ্যুতিক পাখা), মোবারক হোসাইন (ফুটবল) প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।

জোয়ারিয়ানালা:

জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নে ১৬ হাজার ৪৫৮ জন ভোটারের মধ্যে ৮ হাজার ৫৪৫ জন পুরুষ ও ৭ হাজার ৯১৩ জন মহিলা। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে কামাল শামসুদ্দিন আহমেদ (নৌকা), গোলাম কবির (ধানের শীষ), আবছার কামাল সিকদার (ঘোড়া), জসিম উদ্দিন (আনারস), মো. শরিফুল আলম চৌধুরী (অটোরিক্সা), হাবিবুর রহমান (মোটর সাইকেল) ও সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ১নং ওয়ার্ডে অনজনা বড়ুয়া (মাইক), নুর জাহান বেগম (বই), ফাতেমা বেগম (বক), ২ নং ওয়ার্ডে ছেনুয়ারা বেগম (সূর্যমূখি ফুল), তাহেরা আকতার (মাইক), মনোয়ারা বেগম (বক), রেজিয়া আকতার (বই), লায়লা বেগম (হেলিকপ্টার), ৩ নং ওয়ার্ডে ছৈয়দা আকতার (মাইক), জয়নাব আকতার কহিনুর (বক) ও জেসমিন আকতার (তালগাছ), এবং সাধারণ সদস্য পদে ১ নং ওয়ার্ডে মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম চৌধুরী (টিউবওয়েল), মো. আবদু ছালাম আজাদ (আপেল), মো. ইউনুচ (ফুটবল), রমিজ আহমদ (মোরগ), শাহ আলম (তালা), ২ নং ওয়ার্ডে আমিন উদ্দিন মনু (লাটিম), আমির হোছন (তালা), মো. কামাল (টিউবওয়েল), মো. নুরুল আলম (ঘুড়ি), মো. নুরুল ইসলাম (মোরগ), শওকত আলম (ফুটবল), সুকুমার বড়ুয়া (ভ্যানগাড়ি), ৩ নং ওয়ার্ডে আবদুল খালেক (ফুটবল), জাফর আলম (আপেল), দিদারুল আলম (টিউবওয়েল), নুরুল আজিম (তালা), রশিদ মিয়া (মোরগ), ৪ নং ওয়ার্ডে ওবাইদুল হক (ফুটবল), মোক্তার আহমদ (তালা), মো. আবু তালেব (মোরগ), ৫ নং ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন রুবেল, ৬ নং ওয়ার্ডে আবদুল কাদের (ফুটবল), মফিজুর রহমান (বৈদ্যুতিক পাখা), মোঃফারুক আহমদ, (টিউবওয়েল), মোঃ শাহ আলম (ক্রিকেট ব্যাট), হাকিম আলি মোরগ), ৭ নং ওয়ার্ডে মহলজ্জামা (মোরগ), মোঃ আওরঙ্গজেব ( তালা), ৮ নং ওয়ার্ডে একরামুল হক বাবুল (আপেল), জসিমুল ইসলাম (তালা), মীর আহমদ (মোরগ) ও ৯নং ওয়ার্ডে কামাল হোছন (ফুটবল), কামাল হোসেন (বৈদ্যুতিক পাখা), গোরা মিয়া (তালা), মীর কাশেম (মোরগ), মোহাম্মদ সোলেমান (টিউবওয়েল) প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

রাজারকুল:

রাজারকুল ইউনিয়নে ১১ হাজার ৭৩০ জন ভোটারের মধ্যে ৬ হাজার ২৩১ জন পুরুষ ও ৫ হাজার ৪৯৯ জন মহিলা। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে সরওয়ার কামাল সোহেল (নৌকা), আব্দুর রহিম (ধানের শীষ), মুফিজুর রহমান (আনারস) ও সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ১নং ওয়ার্ডে আঞ্জুমান আরা (সূর্যমুখী ফুল) আসমাউল হোছনা (বক), ঝিনু রাণী পাল (তালগাছ), সীমা পাল (বই)। ২ নং ওয়ার্ডে, আলপনা শর্মা (মাইক) আলম শাইর আক্তার (বই), খুরশিদা আক্তার (তালগাছ), লাইলা বেগম (সুর্যমুখী ফুল)। ৩ নং ওয়ার্ডে আঙ্গুর প্রভা বড়ুয়া (বই), ছকিনা খাতুন (তাল গাছ), রূপা বড়ুয়া (বক), রুমা আক্তার (মাইক), এবং সাধারণ সদস্য পদে ১ নং ওয়ার্ডে অপূর্ব পাল (আপেল), আবদুল মজিদ (ক্রিকেট ব্যাট), আমিরুল কবির (মোরগ), বাবুল ধর (বৈদ্যুতিক পাখা), মোস্তাক আহমদ (ঘুড়ি), মো. ছৈয়দ নুর হোছাইন (তালা), শামসুল আলম (টিউবওয়েল), সুজন চক্রবর্তী (ফুটবল), ২ নং ওয়ার্ডে আবুল হোসাইন (ফুটবল), আলী আকবর (তালা), মোহাম্মদ জুবাইর (আপেল), শামসুল আলম (মোরগ), ৩ নং ওয়ার্ডে ফজলুল হক (মোরগ), ফরিদুল আলম (ফুটবল), মো. রমজান আলী (তালা), ৪নং ওয়ার্ডে জহির উদ্দিন (মোরগ), সরওয়ার কামাল (ফুটবল), ৫ নং ওয়ার্ডে আবদুর রহিম (মোরগ), ইদ্রিস মিয়া (ফুটবল), রায়হান উদ্দিন (তালা), ৬ নং ওয়ার্ডে আবদুল গফুর (মোরগ), ওবাইদুল হক (ফুটবল), ছালেহ আহমদ (টিউবওয়েল), নুরুল হক (বৈদ্যুতিক পাখা), মো. ওসমান গনি (তালা), ৭ নং ওয়ার্ডে সাহাব উদ্দিন (ফুটবল), হাবিব উল্লাহ (তালা), ৮ নং ওয়ার্ডে কামাল উদ্দিন (তালা), শহীদুল ইসলাম (ফুটবল), ৯ নং ওয়ার্ডে রিটন বড়ুয়া (তালা) ও স্বপন বড়ুয়া (মোরগ) প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

দক্ষিণ মিঠাছড়ি:

দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নে ১৪ হাজার ১১৯ জন ভোটারের মধ্যে ৭ হাজার ৪৪৩ জন পুরুষ ও ৬ হাজার ৬৭৬ জন মহিলা। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মো. ওসমান গনি (নৌকা), মো. সাইফুল আলম (ধানের শীষ), মাহমুদুল হক (লাঙ্গল), মো. মনিরুজ্জামান (মোটরসাইকেল), মো. ইউনুচ (আনারস) ও সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ১নং ওয়ার্ডে মিনুর নাহার (মাইক), মর্জিনা বেগম (কলম), মরিয়ম বেগম (তালগাছ)। ২ নং ওয়ার্ডে খালেদা আকতার (তালগাছ), রাশেদা বেগম (সূর্যমূখি ফুল), ৩নং ওয়ার্ডে ছেনুয়ারা বেগম (মাইক), শাকিলা সুলতানা (তালগাছ), এবং সাধারণ সদস্য পদে ১ নং ওয়ার্ডে নুরুল কবির মুজিব (টিউবওয়েল), ফরিদুল আলম (ফুটবল), মুফিজুর রহমান (তালা), মো. শফি (মোরগ), মোহাম্মদ হোছাইন (আপেল), ২ নং ওয়ার্ডে আজিজুল হক (ফুটবল), আবদুল নবী মনু (টিউবওয়েল), আবু সাঈদ (তালা), ওসমান গনি (মোরগ), মোজাফ্ফর আহমদ (আপেল), ৩ নং ওয়ার্ডে আবু বক্কর ছিদ্দিক (টিউবওয়েল), আমির হামজা (মোরগ), নুর আহমদ (তালা), ফকির আহমদ (ফুটবল), ফরিদুল আলম (বৈদ্যুতিক পাখা), মোহাম্মদ আলী (আপেল), ৪ নং ওয়ার্ডে আজিজুল হক (মোরগ), আবু তাহের (তালা), আবুল কালাম (ফুটবল), আবুল ফজল (টিউবওয়েল), ৫ নং ওয়ার্ডে ফরিদুল আলম (মোরগ), মফিজুর রহমান (তালা), মোজাহের মিয়া (ফুটবল), ৬ নং ওয়ার্ডে আবদুল ছালাম (মোরগ), মোকতার আহমদ (আপেল), মো. খলিল (ফুটবল), লিয়াকত আলী (তালা), ৭ নং ওয়ার্ডে আমির হোছাইন (বৈদ্যুতিক পাখা), মোহাম্মদ উল্লাহ (মোরগ), মো. কলিম উল্লাহ (তালা), মোহাম্মদ হোসেন (ফুটবল), মো. ইউছুফ (ঘুড়ি), ৮ নং ওয়ার্ডে আবদুর রহিম (মোরগ), ছলিম উল্লাহ (তালা), ফরিদুল আলম (ঘুড়ি), ৯ নং ওয়ার্ডে আবছার কামাল (মোরগ), আবদুল মাবুদ (তালা), ছৈয়দ আলম (ফুটবল), মো. নুরুল আমিন (বৈদ্যুতিক পাখা) প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

খুনিয়াপালং:

খুনিয়াপালং ইউনিয়নে ১৯ হাজার ৯০৪ জন ভোটারের মধ্যে ১০ হাজার ৪৬ জন পুরুষ ও ৯ হাজার ৮৫৮ জন মহিলা রয়েছেন। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আব্দুল মাবুদ (নৌকা), মোহাম্মদ শাহেদুজ্জামান বাহাদুর (ধানের শীষ), আব্দুল হক (চশমা), আলী আহমদ (ঘোড়া), জয়নাল আবেদীন (আনারস), মোঃ জসিম উদ্দিন ( মটর সাইকেল), ও সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ১নং ওয়ার্ডে ইয়াছমিন আক্তার (বই), জেবুন্নেছা (বক), মনোয়ারা ছৌধুরী (মাইক), শাহেদা বেগম (সূর্যমূখী ফুল), সেলিনা আক্তার (তাল গাছ), ২ নং ওয়ার্ডে, রাবিয়া খাতুন (সূর্যমূখী ফুল), সাবেকুন্নাহার (মাইক), সুকুমার বড়ুয়া (তাল গাছ), ৩ নং ওয়ার্ডে কামনুন্নাহার (তাল গাছ), রেহেনা বেগম (সূর্যমূখী ফুল), সাজেদা বেগম (বক), হামিদা বেগম (মাইক), এবং সাধারণ সদস্য পদে ১ নং ওয়ার্ডে, মোঃ আলমগীর (ফুটবল), ছব্বির আহম্মদ (মোরগ), হোছন আহমদ (তালা), ২ নং ওয়ার্ডে,ছৈয়দ আহমদ (টিউবওয়েল), জানেআলম (তালা), নুরুল আমিন (আপেল), ফরিদুল আলম (মোরগ), লিয়াকত আলী (ফুটবল)। ৩ নং ওয়ার্ডে, কামাল উদ্দিন (মোরগ), নুরুল আলম (বৈদ্যুতিক পাখা), নুরুল হক (টিউবওয়েল), মোস্তাক আহমদ (তালা), মোঃ জয়নাল আবেদীন (আপেল), মোঃ রফিকুল ইসলাম (ঘুড়ি), মোঃ হাবিবুর রহমান (ফুটবল), ৪ নং ওয়ার্ডে, আবু তাহের (বৈদ্যুতিক পাখা), আবদুল গফুর (মোরগ), হোছন আহমদ (টিউবওয়েল), ৫ নং ওয়ার্ডে, আব্দুল্লাহ (ফুটবল), আব্দুল শুক্কুর (তালা), এস এম আলাউদ্দিন (আপেল), জয়নাল আবেদীন (মোরগ), রমিজ আহমদ (টিউবওয়েল), ৬ নং ওয়ার্ডে, আব্দুল করিম (ফুটবল), মছন আলী সিকদার (তালা), মোহাম্মদ নজির আহমদ (মোরগ) ৭ নং ওয়ার্ডে, ছৈয়দ উল্লাহ (তালা), মোস্তাক আহমদ (মোরগ), মোহাম্মদ আলম (টিউবওয়েল), শাহ মোঃ দিদারুল আজিম (ফুটবল) ৮ নং ওয়ার্ডে, আহমদ আলী (টিউবওয়েল), কবির আহমদ (ফুটবল), ছৈয়দ আলম সুলতান (বৈদ্যুতিক পাখা), ফখর উদ্দিন (তালা), হাছান মোঃ এনামুল হক (আপেল) ৯ নং ওয়ার্ডে কামাল হোছাইন (টিউবওয়েল), শফিকুল ইসলঅম সোহেল (বৈদ্যুতিক পাখা) প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

চাকমারকুল:

চাকমারকুল ইউনিয়নে ৯ হাজার ৭২৯ জন ভোটারের মধ্যে ৫ হাজার ১৬১ জন পুরুষ ও ৪ হাজার ৫৬৮ জন মহিলা রয়েছেন। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নুরুল ইসলাম সিকদার (নৌকা), মোঃ ফয়সাল কাদের (ধানের শীষ), আমিনুল ইসলাম (আনারস), মুফিদুল আলম (মটর সাইকেল), মোঃ রফিকুল কাদের (চশমা), শফিউল আলম (ঘোড়া), ও সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ১নং ওয়ার্ডে আল মর্জিনা (বই), কহিনুর আক্তার (তাল গাছ), খাদিজা খানম (সূর্যমুখী ফুল), নুর আক্তার (বক), রুজিনা আকতার (মাইক)। ২নং ওয়ার্ড়ে গোলজার বেগম (তালগাছ), হাসিনা আকতার (সূর্যমুখী ফুল) ৩নং ওয়ার্ডে মরিয়ম বেগম (মাইক), শাহিদা বেগম (তালগাছ), এবং সাধারণ সদস্য পদে ১ নং ওয়ার্ডে আব্দুর রহিম (ফুটবল), আহমদ ছৈয়দ ফরমান (তালা), ছৈয়দ নুর (মারগ), ফরিদুল আলম (বৈদ্যুতিক পাখা), ফরিদুল ইসলাম (আপেল), বেলাল উদ্দিন শাহিন (টিউবওয়েল), ২নং ওয়ার্ডে জহির উদ্দিন (টিউবওয়েল), নজরুল ইসলাম (তালা), শাহাব উদ্দিন (ফুটবল), ৩নং ওয়ার্ডে নুরুল ইসলাম (তালা), মকতুল আহমদ (মোরগ), মোঃ তাহের (টিউবওয়েল), মোঃ হাছন (ফুটবল), ৪নং ওয়ার্ডে জসিম উদ্দিন (তালা), জামাল উদ্দিন (বৈদ্যুতিক পাখা), মোস্তাক আহমদ (ফুটবল), মোস্তাক আহমদ (টিউবওয়েল), সাদ্দাম হোসেন (আপেল), ৫নং ওয়ার্ডে ওবাইদুল হক (ফুটবল), ফরিদুল আলম ফরিদ (মোরগ), মোঃ রহিম উল্লাহ (তালা), রাশেদুল হক (আপেল), ৬নং ওয়ার্ডে আমিনুল হক (ফুটবল) মইনুল আলম (তালা), মকবুল আহমদ (বৈদ্যুতিক পাখা), ৭নং ওয়ার্ডে আবু বক্কর সিদ্দিক (ফুটবল), নুরুল আমিন (টিউবওয়েল), রেজাউল করিম খোকন (তালা) ৮নং ওয়ার্ডে আলী আহমদ (ফুটবল), এহেছান উল্লাহ (আপেল), মোঃ আলী (টিউবওয়েল), মোঃ হোসেন (তালা), শফিউল্লাহ (মোরগ) ও ৯নং ওয়ার্ডে ছৈয়দ নুর (ফুটবল), নুরুল আজিম (টিউবওয়েল) প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।