নির্ধারিত ইমাম না থাকলে ইমামতির জন্য অগ্রাধিকার পাবে কে?

ধর্ম ডেস্কঃ
জামাআতে নামাজ আদায় করার জন্য যার অনুসরণ করা হয় তিনিই ইমাম। ইমাম ছাড়া জামাআতে নামাজ আদায় করা যায় না। একজন ব্যক্তিকে ইমাম হতে হলে তার মধ্যে কিছু সুনির্দিষ্ট গুণ থাকা আবশ্যক। এ কারণেই জামাআতে নামাজ আদায় করার জন্য ভালো গুণ সম্পন্ন ব্যক্তিকে নির্বাচন করা হয়।

যদি কোথাও নির্ধারিত ইমাম না থাকে সেখানে ইমামতির জন্য অগ্রাধিকার পাবে কে? কিংবা যিনি ইমামতি করবেন তার যে বিষয়গুলোকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। তাহলো-

নির্ধারিত ইমাম না থাকলে

– কুরআনুল কারিম সবচেয়ে বেশি মুখস্ত থাকা।
– নামাজের নিয়ম-কানুনগুলো ভালোভাবে জানা ব্যক্তিই ইমামতি করবে। অতঃপর
– যিনি হাদিস ও সুন্নত সম্পর্কে অধিক জ্ঞান রাখেন।
– যিনি কোনো স্থানে আগে হিজরত করেছেন কিংবা গিয়েছেন।
– কোনো দলের মধ্যে যিনি আগে ইসলাম গ্রহণ করেছেন।
– ওই দলে যিনি বয়স্ক। এ সব বিষয়গুলোর মধ্যে যদি সবাই সমান হয় তবে লটারির মাধ্যমে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ইমাম নির্ধারণ করতে হবে।

মনে রাখা জরুরি

কোনো স্থানে যখন নামাজের ওয়াক্ত হয়ে যায়, সে স্থানে উপস্থিত মুসলিমগণ কাউকে ইমামতির জন্য নির্ধারণ করবে তখন উল্লেখিত বিষয়গুলোর মাধ্যমে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ইমাম নির্ধারণ করতে হবে।

কিন্তু যদি সেখানে মসজিদ থাকে আর মসজিদে ইমাম নির্ধারিত থাকেন তবে সেখানে নির্ধারিত ইমামই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নামাজ পড়াবেন। হাদিসে এসেছে-

হজরত আবু মাসউদ আনসারি রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, গোত্রের ইমামতি করতে সর্বাধিক কুরআন মুখস্তকারী (হতে হবে), যদি তাতে সমান হয় তবে (যিনি) সুন্নত (হাদিস) সম্পর্কে বেশি অভিজ্ঞ ব্যক্তি (তিনি ইমাম হবেন), তাতেও যদি সমান হয়, তবে (ওই স্থানে) আগে হিজরতকারী (উপস্থিত) ব্যক্তি। আর তাতেও সমান হলে আগে ইসলাম গ্রহণকারী ব্যক্তি (ইমামতি করবে)।’ (মুসলিম)

নামাজের জন্য একত্রিত ব্যক্তিদের মধ্যে যদি সে স্থানের বা বাড়ির মালিক উপস্থিত থাকে তবে সে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ইমামতির যোগ্য। নতুবা স্থানীয় মসজিদের ইমামই ইমামতির বেশি হকদার। আর এ লোকদের দলে যদি ইসলামি সরকারের কোনো প্রতিনিধি উপস্থিত থাকে তবে তিনি ইমামতির বেশি হকদার হিসেবে বিবেচিত হবেন।

সুতরাং মসজিদ থাকলে নির্ধারিত ইমামের পেছনে নামাজ আদায় করতে হবে। আর যদি মসজিদ না থাকে তবে সেখানে উল্লেখিত বিষয়গুলোর আলোকে ইমাম নির্বাচিত করাই হাদিসের ঘোষণা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে নামাজ প্রতিষ্ঠা করতে জামাআতে নামাজ আদায়কে গুরুত্ব দেয়ার তাওফিক দান করুন। হাদিসের নির্দেশনা অনুযায়ী যোগ্য লোককে ইমামতির দায়িত্ব পালনের সুযোগ দেয়ার মানসিকতা দান করুন। আমিন।

সূত্রঃ জাগোনিউজ