জন্ম থেকেই নেই হাত-পা, সেই তিনিই আজ পেশাদার ফটোগ্রাফার!

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
জন্ম থেকেই দুই হাত, দুই পায়ের কোনোটিই তার নেই। সারাজীবন অন্যের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হবে— তার জন্মের সময় সবাই নিশ্চয়ই এমনটাই ভেবেছিলেন। কিন্তু সেই তিনিই পেশাদার ফটোগ্রাফার হয়ে বিশ্বকে চমকে দিয়েছেন!

ইন্দোনেশিয়ার ২৫ বছর বয়সী এই যুবকের নাম আহমেদ জুলকারনাইন। হাত-পা না থাকায় মুখ আর হাতের জায়গায় থাকা বাড়তি অংশটুকু দিয়েই ক্যামেরা চালান তিনি। আর এভাবে ক্যামেরা চালিয়েই আজ তিনি ইন্দোনেশিয়ার অন্যতম জনপ্রিয় পেশাদার ফটোগ্রাফার!

তার মতো শারীরিকভাবে অসম্পূর্ণ মানুষদের সমাজে যে সহানুভূতির দৃষ্টিতে দেখা হয়, সেটা ভালো করেই জানেন জুলকারনাইন। আর তাই নিজের জীবন, নিজের অর্জন নিয়ে গর্বিত তিনি। তার ভাষায়, ‘আমি চাই না মানুষ আমার চেহারা দেখুক এবং ভাবুক আমি কে। আমি শুধু আমার সৃষ্টিশীলতাই তাদের দেখাতে চাই।’

আক্ষরিক অর্থেই কিন্তু তার সৃষ্টিশীলতায় মুগ্ধ গোটা বিশ্ব। জুলকারনাইন যে কেবল ভিন্নভাবে সক্ষম মানুষদের জন্যই অনুপ্রেরণা তা নয়, তিনি প্রমাণ করেছেন—কেউ দৃঢ়চেতা হলে সে যেকোনো প্রতিকূল পরিস্থিতিই অতিক্রম করতে পারে।

জুলকারনাইন যেদিন থেকে বুঝতে শুরু করেছিলেন তার সীমাবদ্ধতা, সেদিনই ঠিক করে নিয়েছিলেন নিজের ভবিষ্যৎ। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে গড়েছেন নিজেকে। জীবনের পথে অনেকবারই ব্যর্থ হয়েছেন, কিন্তু থেমে যাননি। আর সেই দৃঢ়চেতা মনোভাবের ফল আজ গোটা দুনিয়ার সামনে। তার তোলা ছবি আজ বিশ্বজুড়ে সমাদৃত।

তবে এখানেই থেমে যেতে চান না এই বিস্ময় মানব। এরই মধ্যে খুলেছেন নিজের একটি কোম্পানিও। এছাড়া নিজেই চালাতে পারেন— বানিয়ে নিয়েছেন এমন একটি গাড়িও, যে গাড়িতে করে ছুটে যান নানান দিকে। আর এভাবেই জীবনের সব প্রতিকূলতাকে পাশ কাটিয়ে এগিয়ে যেতে চান তিনি।

সূত্র: এই সময়