কমিউনিস্ট পার্টি রাজনীতিকে দুর্বৃত্তায়নমুক্ত করবে: সেলিম

অনলাইন ডেস্কঃ
বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, জনপ্রতিনিধির জন্য নির্বাচনের প্রার্থিতা কোনো ব্যবসা নয়। মনোনয়ন বিকিকিনি করে রাজনীতিকে দুর্বৃত্তায়িত করে ফেলা হয়েছে। আগামী দিনে কমিউনিস্ট পার্টি জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজনীতিকে দুর্বৃত্তায়নমুক্ত করে জনতার শাসন প্রতিষ্ঠা করবে।

শুক্রবার রাজধানীর পুরানা পল্টনে সিপিবির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের কেন্দ্রীয় নির্বাচন পরিচালনা কমিটির দপ্তরে দলের প্রার্থীদের মনোনয়ন ফরম জমা নেওয়ার সময় তিনি এসব কথা বলেন।

এদিন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিপিবির হয়ে কাস্তে মার্কার প্রার্থী হিসেবে অনেকেই দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দেন।

অন্যদিকে দেশের বিভিন্ন আসন থেকে পর্যায়ক্রমে মনোনয়নের জন্য তৃণমূল থেকে সুপারিশের মাধ্যমে প্রার্থীদের নাম আসাও অব্যাহত আছে। প্রার্থী হিসেবে শুক্রবার যাদের নাম এসেছে তারা হলেন— ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি শরিফুজ্জামান শরিফ (বাগেরহাট-৪), সাবেক সভাপতি মানবেন্দ্র দেব (গাজীপুর-৪), সমাজসেবক ও শিশু-কিশোর সংগঠক আবু তাহের বকুল (ঢাকা-৬), ক্ষেতমজুর আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক অধ্যাপক কামরুজ্জামান (রংপুর-৬), সিপিবির কুড়িগ্রাম জেলা সভাপতি উপেন্দ্র নাথ রায় (কুড়িগ্রাম-২), গাইবান্ধা জেলা নেতা যজ্ঞেশ্বর বর্মন (গাইবান্ধা-৫), বগুড়া জেলা নেতা সন্তোষ পাল (বগুড়া-৫), ঝিনাইদহ জেলা নেতা আবদুর রব (ঝিনাইদহ-৩), ময়মনসিংহ জেলা নেতা, হারুন আল বারী (ময়মনসিংহ-৩), নওগাঁ জেলা নেতা মনসুর রহমান (নওগাঁ-৬), কুষ্টিয়া জেলা নেতা অধ্যাপক অহিদুজ্জামান পিন্টু (কুষ্টিয়া-২), ঝিনাইদহ জেলা নেতা ফণিভূষণ রায় (ঝিনাইদহ-৪), বাগেরহাট জেলা নেতা খান সেকেন্দার আলী (বাগেরহাট-২), পটুয়াখালী জেলা নেতা শাহাবুদ্দিন মাস্টার (পটুয়াখালী-২), জামালপুর জেলা নেতা বীরেন্দ্র চন্দ্র গোপ (জামালপুর-৪), পাইকগাছা উপজেলা সভাপতি সুভাষ ছানা মহিম (খুলনা-৬), ক্ষেতমজুর আন্দোলনের সংগঠক অ্যাডভোকেট চিত্তরঞ্জন গোলদার (খুলনা-৫) প্রমুখ।

রোববার পর্যন্ত সিপিবির মনোনয়নের জন্য আবেদন গ্রহণ করা হবে। উল্লিখিত সময়ের মধ্যে তৃণমূল থেকে যথানিয়মে অর্থাৎ শাখা পর্যায় থেকে শুরু করে ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা পর্যায়ের কমিটির মতামতের ভিত্তিতে আবেদন পাঠাতে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি সিপিবির পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে।