সুষ্ঠু শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহনে প্রশাসনের ব্যাপক প্রস্তুতি: রাত পোহালেই রামুর ৫ ইউনিয়নে ভোট উৎসব

সুনীল বড়ুয়া:
কক্সবাজারের রামু উপজেলার ৫ ইউনিয়নে রাত পোহালেই শুরু হবে ভোট উৎসব । পঞ্চম ধাপে উপজেলার ঈদগড়, কাউয়ারখোপ, গর্জনিয়া, কচ্ছপিয়া ও রশিদনগর ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে ।

এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। এদিকে সুষ্ঠু,নিরপেক্ষ এবং গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে উপজেলা প্রশাসন।

রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিনা কাজী আমাদের রামু ডটকমকে বলেন, ভোট মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার। এ অধিকার প্রয়োগে যেনো কোনো বাধাবিঘ্ন সৃষ্টি না হয়,মানুষ সুষ্ঠুভাবে যেন ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে, এজন্য প্রশাসন সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

তিনি বলেন,নির্বাচনে যে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং পুলিশের একাধিক স্ট্রাইকিং ফোর্স মাঠে থাকবে। এ ছাড়াও বিপুল সংখ্যক র‌্যাব,পুলিশ, বিজিবি ও আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে। এছাড়াও যেকোনো ধরনের অনিয়ম ঠেকাতে প্রশাসন কঠোর অবস্থান থাকবে।

রামু উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো.বেদারুল ইসলাম আমাদের রামু ডটকমকে জানান, উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে মোট ৪৫টি ভোট কেন্দ্রের ১৭২টি বুথে ৬০ হাজার ১৮৩জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এদের মধ্যে ৩০ হাজার ২৬৪জন পুরুষ এবং ২৯ হাজার ৯১৯জন নারী ভোটার রয়েছেন।

তিনি বলেন,সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন করার জন্য এসব কেন্দ্রে তিনজন রিটার্নিং অফিসার, ৪৫জন প্রিসাইডিং অফিসার,১৭২জন সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার এবং ৩৪৪ পোলিং অফিসার দায়িত্ব পালন করবেন।

জানা গেছে, ৫টি ইউনিয়নের মধ্যে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ বেদারুল ইসলামকে রশিদনগর ইউনিয়নের রির্টার্নিং অফিসার, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা মো. সলিম উল্লাহকে ঈদগড় ও কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের রির্টার্নিং অফিসার এবং প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা.রুপেন চাকমাকে কচ্ছপিয়া ও গর্জনিয়া ইউনিয়নের রির্টার্নিং অফিসারের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

রামু থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর আমাদের রামু ডটকমকে জানান, ৪৫টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ১৯টি অতি ঝুকিপূর্ণ এবং ২৬টি কেন্দ্রকে ঝুকিপূর্ণ ঘোষনা করা হয়েছে। এসব কেন্দ্রে যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশের সকল ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে।

এদিকে শনিবার অনুষ্ঠিতব্য ৫ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২১ জন ,সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৫০ জন,এবং সাধারণ সদস্য পদে ১৫২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।

উল্লেখ্য, রামুর অপর ৬টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৪ জুন।