কক্সবাজারে পাহাড় কাটার দায়ে যুবককে ২ বছরের কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্কঃ
কক্সবাজার শহরে পাহাড় কাটার দায়ে এক যুবককে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া অবৈধভাবে দখলে থাকা কোটি টাকার সরকারি জমির দখল উচ্ছেদ করা হয়েছে। অভিযানে মাটিকাটার নানা সরঞ্জামও জব্দ করা হয়।

সোমবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত কক্সবাজার সদর উপজেলার জেলগেট সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকায় এ অভিযান চালানো হয় বলে জানিয়েছেন পরিবেশ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক সাইফুল আশ্রাব।

সাজাপ্রাপ্ত মোহাম্মদ মাসুম (৩৩) কক্সবাজার পৌরসভার ঝাউতলার গাড়িরমাঠ এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে।

কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিব হাসান এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজিম উদ্দিন এ অভিযান পরিচালনা করেন।

পরিবেশ অধিদফতর সূত্র জানায়, সদর উপজেলার বাইপাস জেলগেট সংলগ্ন এলাকায় অবৈধভাবে পাহাড় কেটে প্লট করে পাকা বাউন্ডারি দেয়া হচ্ছে- এমন অভিযোগ পেয়ে অভিযান চালানো হয়। ঘটনাস্থলে গিয়ে তথ্যের প্রমাণ পায় অভিযানকারীরা। এসময় পাহাড় কাটায় জড়িত মাসুমকে আটক করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে ১টি মোবাইল, ৫টি টুকরি, ১টি বেলচা, ১টি কোদাল, ১টি নলকূপ, ২টি স্টিলের দরজা, প্রায় এক হাজার ইট ও ৫টি ছোট-বড় টিন জব্দ করা হয়।

সদর উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুল হাসান এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজিম উদ্দিন পরিবেশগত ছাড়পত্র ব্যতিরেকে অবৈধভাবে সরকারি পাহাড় কাটার দায়ে পরিবেশ সংরক্ষণ আইনে মাসুমকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

অভিযানে প্রসিকিউটরের দায়িত্ব পালন করা সহকারী পরিচালক সাইফুল আশ্রাব বলেন, সাজাপ্রাপ্তকে রাতেই কারাগারে পাঠানো হয়েছে। জব্দকৃত মালামাল হেফাজতে রেখেছে পরিবেশ অধিদফতর।

সদর থানার এএসআই মো. রাশেদ ও আনসার প্লাটুন কমান্ডার আব্দুল জব্বার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযানে নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন।