টেকনাফে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের হামলায় ৬ সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় কক্সবাজার উপকূলীয় সাংবাদিক ফোরামের শাস্তি দাবী

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
কক্সবাজারের টেকনাফে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে ৬ সাংবাদিককে বেপরোয়া কুপিয়ে আহত করেছে চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ীরা। আহতরা হলেন- সময় টিভির কক্সবাজারস্থ স্টাফ রিপোর্টার সুজাউদ্দিন রুবেল, তার ক্যামেরাপার্সন ফয়েজ, ইন্ডিপেডেন্ট টিভির জেলা প্রতিনিধি তৌফিকুল ইসলাম লিপু, তার ক্যামেরাপার্সন শরীফ, ৭১ টিভির জেলা প্রতিনিধি কামরুল ইসলাম মিন্টু ও তার ক্যামেরাপার্সন বাবু কান্তি।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের নাজিরপাড়া স্কুল মাঠে এ হামলার ঘটনা ঘটে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভূক্ত শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রধান নুরুল হক ভূট্টোর নেতৃত্বে এ হামলা ঘটনা ঘটনো হয় বলে নিশ্চিত করেছেন আহত সাংবাদিকরা।

সাংবাদিক উপর ন্যাক্কর জনক সন্ত্রাসী কায়দায় হামলায় ফুঁসে উঠেছে কক্সবাজার সাংবাদিক সমাজ।
চিহ্নিত হামলাকারীদের আটক করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার দাবী জানিয়ে কক্সবাজার জেলা উপকূলীয় সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক এ.এম হোবাইব সজীব স্বাক্ষরিত পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছেন উপদেষ্টা হাজী মোং ইলিয়াস এমপি, অধ্যক্ষ ড. মোঃ সানাউল্লাহ, দৈনিক আপন কণ্ঠের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আলহাজ্ব রুহুল আমিন সিকদার, সিটিএন ২৪. কমের প্রকাশক ও সম্পাদক সরওয়ার আলম, সভাপতি স.ম ইকবাল বাহার চৌধুরী, সিনিয়র-সহসভাপতি শহিদুল ইসলাম কাজল, সহ-সভাপতি মোহাম্মদ শাহাদাত হোছাইন, সহ-সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, সহ-সাধারণ সম্পাদক এম দিদারুল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলিম নোবেল, যুগ্ম সম্পাদক ওবাইদুল হক আবু চৌধুরী, অর্থ সম্পাদক এম রমজান আলী, প্রচার সম্পাদক-আবু বক্কর ছিদ্দিক, দপ্তর সম্পাদক আবু হেনা সাগর। জিয়া উদ্দিন ফারুক, মুকুল কান্তি দাশ, শাহেদ ইমরান মিজান, আতিকুর রহমান মানিক, সরওয়ার আলম শাহীন, মাহমুদুল হক বাবুল, আমান উল্লাহ আমান, মোঃ ফারুক, অর্পণ বড়ুয়া- নিবার্হী সদস্য। আবদুল মালেক সিকদার, মারজান আহমদ চৌধুরী, সৈয়দ মোস্তাফা আলী, আমিনুল কবির, সরওয়ার উদ্দিন, রকিয়তউল্লাহ ছোটন, সরওয়ার কামাল, এফ. এম সুমন, এম নজরুল ইসলাম, আবদুল গফুর সদস্য।

বিবৃতিতে ইয়াবার গডফাদারদের গ্রেফতার না করলে মানবন্ধনসহ বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন উপকূলীয় সাংবাদিক ফোরামের নেতারা।