খালেদার মুক্তি দাবিতে বুধবার প্রতীকী অনশন বিএনপির

অনলাইন ডেস্কঃ
দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে মানববন্ধনের পর বুধবার সারাদেশে প্রতীকী অনশন করবে বিএনপি।

ঢাকায় রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে এই কর্মসূচি পালিত হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

মঙ্গলবার দুপুরে নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেছিলেন, “আমরা মহানগর নাটমঞ্চ অথবা রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন প্রাঙ্গণের জন্য অনুমতি চেয়েছি। আশা করছি, যে কোনো একটার অনুমতি আমরা পেয়ে যাব।”

সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঢাকাসহ সারাদেশে মহানগর ও জেলা সদরে এই অনশন হবে বলে তিনি জানান।

বিকালে রিজভী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে কর্মসূচি পালনের অনুমতি পেয়েছেন তারা।

কারাবন্দি খালেদাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে স্থানান্তরের দাবিও সংবাদ সম্মেলনে জানান রিজভী।

তিনি বলেন, “দেশনেত্রীর শারীরিক অবস্থা দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে। তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা বলেছেন, দ্রুত চিকিৎসা না দেয়া হলে তার বাম পা ও হাত অবশ হয়ে যেতে পারে।”

বিএনপি মহাসচিব স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার দুদিন পরও সরকারের কোনো উদ্যোগ না দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করে রিজভী বলেন, “তার (দেশনেত্রী) চিকিৎসা নিয়ে ছলচাতুরি চলছে এবং কালক্ষেপণ করা হচ্ছে বলে আমরা মনে করি।”

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে সোমবার সারাদেশে গ্রেপ্তার বিএনপির নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

রিজভী বলেন, সারাদেশে তিন শতাধিক নেতা-কর্মীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে, এর মধ্যে ২৭৫ জন ঢাকার।

তিনি বলেন, “মানববন্ধনের মতো শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে এভাবে গ্রেপ্তারের ঘটনা পরিকল্পিত। তারা (পুলিশ) কর্মসূচি করতে অনুমতি দিলেন, শান্তিপূর্ণ একটা মানববন্ধন নেতৃবৃন্দ দাঁড়িয়ে বক্তব্য দিয়েছেন। সেটিকে বানচাল করানোর জন্য প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ দমননীতি চালালো সরকার। দেশজুড়ে এই ন্যক্কারজনক ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় বইছে।”

মানববন্ধন কর্মসূচির পর থেকে দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু বকর সিদ্দিকী নিখোঁজ জানিয়ে রিজভী বলেন, “নিশ্চয়ই তিনি সরকারি কোনো বাহিনীর নিকটেই আছে। আমি অবিলম্বে তাকে জনসমক্ষে হাজির করার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।”

সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য কবীর মুরাদ, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব, আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, মুনির হোসেন, আবদুল আউয়াল খান, সাইফুল ইসলাম পটু উপস্থিত ছিলেন।

সূত্রঃ বিডিনিউজ