রামুতে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানকে হাত-পা কেটে হত্যার হুমকীর প্রতিবাদে এলাকাবাসীর সমাবেশ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
রামু উপজেলা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শামসুল আলমকে হাত-পা কেটে ফেলার হুমকী দিয়েছে স্থানীয় সরকার দলীয় কতিপয় নেতাকর্মী। এ ঘটনায় ক্ষুব্দ এলাকাবাসী প্রতিবাদ সমাবেশ করে অবিলম্বে হুমকীদাতাদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

বৃহষ্পতিবার ১২ মে সন্ধ্যা সাতটায় কাউয়ারখোপ উখিয়ারঘোনা স্টেশন চত্বরে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, দীর্ঘদিনের ত্যাগী নেতা শামসুল আলম ইউপি নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শফিউল আলমের নৌকা প্রতীকের পক্ষে প্রচারনা চালান। এতে ক্ষুব্দ হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোস্তাক আহমদ ও তার সহযোগি স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা নুরুল ইসলাম নাহিদের নেতৃত্বে একটি দল গত ১১ মে রাতে কাউয়ারখোপ বাজারে জনসম্মুখে আওয়ামীলীগ নেতা শামসুল আলমকে হাত পা কেটে নেয়ার হুমকী দেন।

হুমকীদাতারা শামসুল আলমকে অশ্লীল গালমন্দ ছাড়াও তাকে কাউয়ারখোপ এলাকায় চলাফেরা করতে দেবে না বলেও হুমকি দেয়।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, একজন প্রবীন রাজনীতিককে উদ্দেশ্যে করে এ ধরনের হুমকী-ধমকি দেয়ায় পুরো এলাকাবাসী ক্ষুব্দ ও মর্মাহত। এ ঘটনায় জড়িতরা অবিলম্বে প্রকাশ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে।

মৌলভী মোহাম্মদ হাছানের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মৌলানা ইউনুচ, আওয়ামীলীগ নেতা হাজ্বী আনোয়ার, মাওলানা কাশেম কাদেরী, সাবেক মেম্বার খুইল্যা মিয়া, মহিলা মেম্বার আনার কলি, রোকেয়া বেগম, ছালেহা বেগম, এরশাদ উল্লাহ, সালাহ উদ্দিন, বর্তমান মেম্বার আজিজুল হক, মো. শহীদুল্লাহ, রফিকুল আলম, আবছার মিয়া, মৌলানা ইউনুচ, মুন্সী সাইফুল ইসলাম, মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, নজির আহমদ সওদাগর, সাবেক মেম্বার মাষ্টার মোহাম্মদ হোছাইন, ইউছুফ আলী প্রমূখ।

প্রতিবাদ সমাবেশ পরিচালনা করেন, কলিম উল্লাহ। শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন, মো. শহীদুল্লাহ।