কাজী নজরুল আমাদের শেখালেন সূর্যকে মামা ডাকতে

আনিসুর রহমানঃ
নিজেকে প্রশ্ন করে দেখি নি নজরুল কিভাবে আমারে শৈশবকে জয় করে নিয়েছিলেন। কিন্তু আজ নিজেকে প্রশ্ন করে নজরুলের লেখা ছোটদের কবিতার বিশেষ করে শৈশবের পড়া কয়েকটি কবিতা আবার ঝালাই করে নিলাম। এখন বুঝি নজরুল কেন আমাকে জয় করে ছিলেন। প্রভাতি কবিতার কথা। এমন ঘটনা ঘটেনি এমন বালক কি আর এই বাংলায় খুঁজে পাওয়া যাবে?

প্রভাতি
ভোর হল দোর খোল
খুকুমণি ওঠরে
ঐ ডাকে জুঁইÑশাখে
ফুল খুকি ছোটরে
খুলি হাল তুলি পাল
ঐ তরী চলল,
এইবার এইবার
খুকু চোখ খুলল।
আলসে নয় সে
উঠে রোজ সকালে,
রোজ তাই চাঁদা ভাই
টিপ দেয় কপালে।

তারপর ‘লিচু চোর’ কবিতা, এই কবিতা নতুন করে আলোচনায় এলো প্রয়াত রাজনীতিবিদ সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হোসেন তৌফিক ইমামকে যখন এই কবিতাটি পড়ার পরামর্শ দিলেন। সব কাগজে খবর হয়েছিল। এই লিচু চোর কবিতার বিষয়বস্তুর সঙ্গে আমাদের তো দুরন্ত দুর্বার সফল বালকের শৈশবের ঘটনা।

সঙ্কল্প কবিতায় যে প্রতিজ্ঞার কথা লিখেছেন এই প্রতিজ্ঞা তো প্রতিটি শিশুর। সকালে চড়ুইভাতি খেলা, আম কুড়াতে যাওয়া, কাঁঠালের মুচি কুড়াতে যাওয়া, আরেক পাড়ায় তিথি জাম পারতে যাওয়া, জলপাই কুড়াতে যাওয়া দাতুই গোটা তুলতে যাওয়া। ছোটদের কবিতা নজরুল ছোটদের খোলা মন নিয়ে ছোটদের চোখ দিয়ে দেখেছেন। ছোটদের কবিতায় ছোটদের স্বাধীন সার্বভৌম অস্তিত্ব দেখেছেন, প্রকাশ করেছেন চাপিয়ে দেওয়া প্রাপ্ত উপদেশ-নীতির কথার ভরে ছোটদের জন্যে দাওয়াই করেন নি। সংকল্প কবিতা থেকে:
থাকব নাক বদ্ধ ঘরে
দেখব এবার জগৎটাকে
কেমন করে ঘুরছে মানুষ
যুগান্তরের ঘূর্ণিপাকে।
ছোটদের জন্যে নজরুলের কবিতা আমাদের দেশেই নয়- পৃথিবীর অন্যান্য দেশের ছোটদের কবিতার অংশ হিসেবেও সমাদৃত হয়েছে। একটা উদাহরণ দিয়েই আমার কথা শেষ করছি-
স্ক্যান্ডিনেভিয়ার একটা স্কুলে ছোটদের সঙ্গে ছোটদের কবিতা নিয়ে কথা বলার জন্যে একবার আমন্ত্রিত হয়েছিলাম, একই উপলক্ষে কসোভোর লেখক মুহাম্মদ ক্রাসনিকিও এবং সুইডেনের গ্রন্থাগারিক ইঙ্গেবরি সেভাস্টিক আমার সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন। ইঙ্গেবরি ইংরেজি এবং সুইডিশ ভাষায় ছোটদের কবিতার একটা সঙ্কলন নিয়ে এসেছিলেন। সঙ্কলনটির নাম এই বিশাল পৃথিবীতে (I denna vida varld/In this wide world)। এখানে শতাধিক দেশের ছোটদের কবিতা স্থান পেয়েছে। সেখানে আমাদের দেশের একজনের একটা কবিতা অন্তর্ভুক্ত হয়েছে – তিনি হলেন আমার শৈশবের নায়ক কাজী নজরুল ইসলাম। তাঁর কবিতাটি ইঙ্গেবরি সুইডিশ এবং ইংরেজিতে পড়ে শুনালেন।
নজরুল প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে পৃথিবীর নানাদেশে অপর প্রান্তেও ছেলেমেয়েদের শৈশবকে জয় করেন।

সূর্যকে মামা ডাকার শিক্ষাটাও আমরা নজরুল থেকেই পেয়েছি।
আকাশের মহাশক্তিধর সুর্যকে জমিনে এনে শিশুদের মামা করে ছেড়েছেন। কল্পনার স্বাধীনতা নজরুল শিশুদের জন্যে এভাবেই উদযাপন করেছেন। নজরুল তাঁর ‘আমি হব’ কবিতায় আমাদের শেখালেন সূর্যকে মামা ডাকতে।

আমি হব
আমি হব সকাল বেলার পাখি
সবার আগে কুসুম বাগে
উঠব আমি ডাকি।
সুয্যি মামা জাগার আগে
উঠব আমি জেগে,
হয়নি সকাল, ঘুমো এখন,
মা বলবেন রেগে।