টেকনাফে বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় পুণরায় মেয়র হচ্ছেন নৌকার মাঝি হাজী মো. ইসলাম: ২ মেয়র প্রার্থীসহ ৭ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার

টেকনাফ প্রতিনিধি:
আসন্ন ২৫ মে টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় পুণরায় মেয়র হতে যাচ্ছেন গরীব দু:খী মানুষের প্রিয় বন্ধু হাজী মো. ইসলাম

৯ মে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত নিজের ইচ্ছায় ২ মেয়র প্রার্থীসহ আরো ৫ জন কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, ৫ জন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে যাছাই বাছাইয়ে শেষ দিনে দুই জন মেয়র প্রার্থী মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়ে যায়। তারা হচ্ছেন- স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুক বাবুল, মো. হাসেম।

তার পর তিনজন মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বৈধ হলেও ৯ মে দুই জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে নেন। তারা হলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ইসমাইল ও মো. জাহাঙ্গীর।

এতে করে বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় মেয়র হতে যাচ্ছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একক মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র, নৌকার মাঝি ও টেকনাফবাসীর সাদা মনের মানুষ হাজী মো. ইসলাম।

এদিকে আরো দুইজন বর্তমান কাউন্সিলার বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় পুণরায় জনগণের প্রতিনিধি হতে যাচ্ছেন। তারা হেেচ্ছন, ৭ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর পৌরসভার প্যানেল মেয়র-১ মৌলভী মুজিবুর রহমান ও ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলার সাংবাদিক আবদুল্লাহ মনির।

নির্বাচন অফিস সুত্রে আরো জানা যায়, মনোনয়ন প্রত্যাহরের শেষ সময় পর্যন্ত ৫ জন কাউন্সিলর প্রার্থী বিভিন্ন কৌশলে ম্যানেজ হওয়ার পর নিজের ইচ্ছাতেই তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। তারা হলেন, ৬ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলার মো. ইউসুফ, ঠিকাদার মো. জাহাঙ্গীর , সোহেল রানা, ২ নং ওয়ার্ডের মো. আলম, ৩নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী জাহেদ হোসেন।

এদিকে মেয়র প্রার্থী ফারুক বাবুলের প্রার্থীতা বাতিল হওয়ার পর পুণরায় প্রার্থীতা ফিরে জন্য আদালতে আপিল করে কিন্তু সেখানেও তার প্রার্থীতা বাতিল হয়ে যায়। একই নিয়মে ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মো. ইলিয়াছের ২ মে যাছাই বাছাইয়ে প্রার্থীতা বাতিল হয়ে যায়। এরপর উচ্চ আদালতে আপিল করে সেখানেও তার প্রার্থীতা বাতিল হয়ে যায়।

মঙ্গলবার ১০ মে প্রতীক বরাদ্ধ এবং আগামী ২৫মে টেকনাফ পৌর নিবার্চন অনুষ্ঠিত হবে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম আমাদের রামু ডটকমকে জানান, টেকনাফ পৌর নির্বাচনে ৪ জন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে কক্সবাজার জেলা রিটানিং কর্মকর্তা মনোনয়ন পত্রে বিভিন্ন ভুল ক্রটি থাকায় ২ জনের মনোনয়ন পত্র বাতিল করে দেন। আর বাকি দুইজন প্রার্থী নিজের ইচ্ছায় তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন।

তিনি আরো বলেন, মেয়র প্রার্থী ফারুক বাবুলের প্রার্থীতা বাতিল হওয়ার পর পুণরায় প্রার্থীতা ফিরে পেতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের বরাবরে আপিল করে কিন্তু জেলা প্রশাসক একই নিয়মে মনোনয়ন পত্রে ভুল থাকায় আপিল খারিজ করে দেন।