টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আরও কাছে বাংলাদেশ

বার্ষিক হালনাগাদের পর মঙ্গলবার নতুন র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করেছে আইসিসি। এই হালনাগাদে অতীত হয়ে গেছে ২০১২-১৩ মৌসুমের পারফরম্যান্স। ২০১৩-১৪ ও ২০১৪-১৫ মৌসুমের পারফরম্যান্স বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে ৫০ শতাংশ, আর ২০১৫-১৬ মৌসুমের শতভাগ।

হালনাগাদের আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যবধান ছিল ২৯ পয়েন্ট। ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে ৮ নম্বরে ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে ৯ নম্বরে বাংলাদেশ। হালনাগাদের পর অবস্থান ঠিক থাকলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের পয়েন্ট কমে হয়েছে ৬৫, বাংলাদেশের বেড়ে হয়েছে ৫৭।

হালনাগাদের পর শীর্ষস্থান আরও সংহত করেছে অস্ট্রেলিয়া। দুইয়ে থাকা ভারতের সঙ্গে ব্যবধান আগে ছিল ২ পয়েন্ট, সেটি বেড়ে হয়েছে ৬ পয়েন্ট।

ভারতের ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান। চার থেকে তিনে উঠে এসেছে তারা, ভারতের থেকে পিছিয়ে মাত্র ১ পয়েন্ট।

তবে হালনাগাদ বড় দু:সংবাদ বয়ে এনেছে দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য। তিন থেকে প্রোটিয়ারা নেমে গেছে ছয় নম্বরে। র‌্যাঙ্কিংয়ে কমেছে তাদের ১৭ পয়েন্ট!

হালনাগাদের পর র‌্যাঙ্কিং:

র‌্যাঙ্ক দল পয়েন্ট
১ (-) অস্ট্রেলিয়া ১১৮ (+৬)
২ (-) ভারত ১১২ (+২)
৩ (+১) পাকিস্তান ১১১ (+৫)
৪ (+১) ইংল্যান্ড ১০৫ (+৩)
৫ (+১) নিউ জিল্যান্ড ৯৮ (+২)
৬ (-৩) দক্ষিণ আফ্রিকা ৯২ (-১৭)
৭ (-) শ্রীলঙ্কা ৮৮ (-১)
৮ (-) ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৬৫ (-১১)
৯ (-) বাংলাদেশ ৫৭ (+১০)

# জিম্বাবুয়ের পয়েন্ট ১২। তবে হালনাগাদের জন্য বিবেচিত সময়ে ন্যূনতম ৮টি টেস্ট খেলেনি দেখে তারা তালিকায় নেই। আর ২টি টেস্ট খেললে আবার তারা র‌্যাঙ্কিংয়ের তালিকায় আসবে।

র‌্যাঙ্কিং হিসেবের সময়ে জয়-পরাজয়ে অনুপাত:

(২০১৩ সালের ১ মে থেকে)

দল ম্যাচ জয় হার ড্র জয়-পরাজয়ের অনুপাত
অস্ট্রেলিয়া ৩৪ ১৯ ২.১১
পাকিস্তান ২২ ১১ ১.৫৭
নিউ জিল্যান্ড ২৬ ১১ ১.২২
ইংল্যান্ড ৩৬ ১৫ ১৪ ১.০৭
ভারত ২৩ ১.০০
দক্ষিণ আফ্রিকা ২৩ ১.০০
শ্রীলঙ্কা ২৩ ১০ ০.৯০
বাংলাদেশ ১৪ ০.৭৫
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২৩ ১৫ ০.২৭
জিম্বাবুয়ে

০.২০