কক্সবাজারে বিজিবি-বিজিপি পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিতঃ সীমান্তের ৪ হাজার রোহিঙ্গাকে ফিরিয়া নেবে মিয়ানমার

অর্পন বড়ুয়া :
কক্সবাজারে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) এর আঞ্চলিক কমান্ডার পর্যায়ে সৌজন্যমূলক পতাকা বৈঠক শেষে বিজিবি কক্সবাজার আঞ্চলিক কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম রাকিবুল্লাহ সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন- বান্দরবানের তুমব্রু সীমান্তের কোনার পাড়া জিরোলাইনে আশ্রিত ৪ হাজার রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেয়া হবে বলে বিজিপি আশ্বস্থ করেছেন। তবে কখন ফিরিয়ে নেয়া হবে সে বিষয়ে কিছু বলা হয়নি। পাশাপাশি ইয়াবাসহ যে কোন ধরনের মাদকের বিরুদ্ধে বিজিবি এবং বিজিপি যৌথভাবে কাজ করবে বলে বৈঠকে দুই পক্ষই সম্মত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে কক্সবাজারস্থ বিজিবির আঞ্চলিক সদর দপ্তরে বৈঠক শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

টানা ৩ ঘন্টাব্যাপী চলমান বৈঠকে বিজিপি অভিযোগ করেন নাইক্ষ্যংছড়ির সীমান্ত ও তার আশপাশের এলাকায় কিছু উগ্রবাদী সংগঠনের অবাদ বিচরণ ও প্রশিক্ষণ হচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে বিজিবি মিয়ানমার প্রতিনিধি দলকে আশ্বস্থ করে বলেছেন বাংলাদেশে সন্ত্রাসীদের কোন বীজ বপন হতে দেয়া হবে না।

এর আগে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে ৯ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বিজিবি কক্সবাজার আঞ্চলিক কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম রাকিবুল্লাহ। মিয়ানমারের পক্ষে ১২ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বিজিপি’র মংডু আঞ্চলিক কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাঈন টুও। বৈঠকে উভয় বাহিনীর মধ্যে তথ্য বিনিময়, সীমান্তে নিয়মিত যৌথ টহল, ইয়াবা প্রতিরোধ, সীমান্ত পরিস্থিতি, রোহিঙ্গা ইস্যুসহ নানা বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা হয়।