কষ্টের জয়ে শুরু ফ্রান্সের

ক্রীড়া ডেস্কঃ
পেনাল্টির বদলে পেনাল্টি। নিষ্প্রাণ ম্যাচে হঠাৎ উত্তেজনা। বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট ফ্রান্সকে কাঁপিয়ে দিল অস্ট্রেলিয়া। তবে পল পগবার শেষ দিকের গোলে জয় দিয়েই রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরু করল ফ্রান্স।

কাজানে ‘সি’ গ্রুপের প্রথম ম্যাচে ২-১ গোলে জিতেছে দিদিয়ে দেশমের দল। অঁতোয়ান গ্রিজমান ফ্রান্সকে এগিয়ে নেওয়ার পর মাইল জেডিনাকের গোলে সমতা ফেরায় অস্ট্রেলিয়া। শেষটায় ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ফরোয়ার্ড পগবা।

কাজান অ্যারেনায় শনিবার শুরুতে অস্ট্রেলিয়ার রক্ষণে প্রবল চাপ তৈরি করে ফ্রান্স। প্রথম সাত মিনিটে লক্ষ্যে তিনটি শট নেয় দিদিয়ে দেশমের শিষ্যরা। আক্রমণের ঝাপটা সামলে পরে কিছুক্ষণ ফ্রান্সকে চাপে রাখে অস্ট্রেলিয়া।

রক্ষণে অস্ট্রেলিয়া ছিল দারুণ সংগঠিত। বল হারানোর পর প্রতিবার ফিরে পেতে বেগ পেতে হয়েছে ফরাসিদের। বল পাওয়ার পর দ্রুত পাল্টা আক্রমণে যাওয়ার চেয়ে অস্ট্রেলিয়ার মনোযোগ ছিল বল ধরে রাখার দিকে। এর মাঝেও সুযোগ তৈরি করে দলটি। ১৭তম মিনিটে তাদের দারুণ একটি চেষ্টা ব্যর্থ করে দেন উগো লরিস।

ফ্রান্সের খেলায় ছিল সমন্বয়ের অভাব। গ্রিজমান, উসমান দেম্বেলে আর ফ্রান্সের হয়ে সবচেয়ে কম বয়সে ইউরো বা বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টে খেলা কিলিয়ান এমবাপে পারেননি তেমন কোনো পরিষ্কার সুযোগ তৈরি করতে।

দ্বিতীয়ার্ধে গ্রিজমানকে জশুয়া রিসডন ফাউল করলে পেনাল্টি পায় ফ্রান্স। ভিএআর প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। সফল পেনাল্টি কিকে ৫৯তম মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন আতলেতিকো মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড গ্রিজমান।

পরের মিনিটেই দ্বিগুণ হতে পারতো ব্যবধান। জটলা থেকে গ্রিজমানের শট ফিরে একজনের গায়ে লেগে।

৬২তম মিনিটে জেডিনাকের পেনাল্টি গোলে সমতা ফেরে ম্যাচে। লাফিয়ে উঠে সামুয়েল উমতিতি হেডের চেষ্টা করার সময় তার হাতে বল ছুঁয়ে গেলে পেনাল্টি পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া।

দুই পেনাল্টি গোলের মধ্যে পার্থক্য ১৮৭ সেকেন্ড। বিশ্বকাপের কোনো ম্যাচে এরচেয়ে কম সময়ে দুই দল পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারেনি।

উত্তেজনা ছড়ানো কয়েকটা মিনিটের পর দারুণ জমে উঠে খেলা। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের মধ্যে ৮১তম মিনিটে ফ্রান্সকে এগিয়ে নেন পল পগবা। ডি বক্সের ভেতর থেকে তার শট আজিজ বেহিচের পা ছুঁয়ে ক্রসবারের নিচের দিকে লেগে গোললাইন অতিক্রম করে।

বাকি সময়ে দারুণ চেষ্টা করলেও গোলের দেখা পায়নি অস্ট্রেলিয়া। ব্যবধান বাড়াতে পারেনি ফ্রান্সও।

আগামী বৃহস্পতিবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ডেনমার্কের বিপক্ষে খেলবে অস্ট্রেলিয়া। একই দিন পেরুর মুখোমুখি হবে ফ্রান্স।