ঘুমধুমে পল্লী বিদ্যুৎয়ের লাইন সংযোগ দেওয়ার কথা বলে ১৬ লাখ টাকা আত্নসাৎ করার অভিযোগ

শহিদুল ইসলাম, উখিয়া।
উখিয়ার সীমান্তবর্তী ঘুমধুম ইউনিয়নের উত্তর বড়ুয়া পাড়া এলাকায় পল্লী বিদ্যুৎয়ের লাইন সংযোগ দেওয়ার কথা বলে একটি মহল অসহায় লোকজনের নিকট থেকে প্রায় ১৬ লক্ষ্য টাকা আত্নসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে। ওই টাকা একজন গ্রাহক বিদ্যুৎ সংযোগ না পেয়ে টাকা ফেরত চাওয়ার অপরাধে তাকে দুর্নীতিবাজরা ব্যাপক মারধর করেছে।

জানা গেছে, ঘুমধুম ইউনিয়নের উত্তর বড়ুয়া পাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য লক্ষিকান্তি মেম্বারের ছেলে রাহুল মাষ্টার, দীন মহন বড়ুয়ার ছেলে স্বপন মাষ্টার ও মনহরি বড়ুয়ার ছেলে রূপন বড়ুয়া ১০৩ পরিবারকে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার কথা বলে জনপ্রতি ৮/১০ হাজার টাকা করে উত্তোলন করেন। দীর্ঘ দিন পার হয়ে গেলেও একই এলাকার মৃত সাধন বড়ুয়ার ছেলে দানু বড়ুয়া গত বৃহস্পতিবার রাত ৮ টার দিকে স্থানীয় বড়বিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২ সহকারী শিক্ষক রাহুল বড়ুয়া , স্বপন বড়ুয়া ও রূপন সওদাগরের কাছ থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার নামে নেওয়া ৮ হাজার টাকা ফেরত চাইতে গেলে তাকে রাহুল মাষ্টারের বাড়ীর সামনে গতিরোধ করে বেদড়ক মারধর করে গুরুতর আহত করলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এ সময় স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করায়।

স্থানীয় গ্রামবাসীদের অভিযোগ, কথিত স্কুল শিক্ষক রাহুল বড়ুয়া, স্বপন বড়ুয়া ও রূপন সওদাগর এলাকার লোকজনদেরকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে গ্রামে বিদ্যুৎয়ের লাইন সংযোগ দেওয়ার কথা বলে ১০৩ পরিবারের নিকট থেকে প্রায় ১৬ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছে পরিনত হয়েছে।

দীর্ঘ দিন ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ না পাওয়ায় গ্রাহকেরা বিক্ষুব্দ হয়ে উঠেছে বলে জানা গেছে। এ বিদ্যুৎ সংযোগের টাকা নিয়ে স্থানীয় গ্রামবাসী ও দালাল চক্রের মধ্যে যে কোন মূর্হুতে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের মত ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশংখা করা হচ্ছে। দালাল চক্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার গুলোর পক্ষ থেকে আহত দানু বড়ুয়া বাদী হয়ে ৯ দালালের বিরুদ্ধে নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি আবুল খাইর বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।