রামু চৌমুহনীতে দিনদুপুরে স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা ছিনতাই!

Mobile

সোয়েব সাঈদঃ
রামুর সবচেয়ে জনগুরুত্বপূর্ণ স্থান চৌমুহনী স্টেশনে দিনদুপুরে এক মহিলার স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা ছিনতাই হয়েছে। শনিবার ৩০ এপ্রিল সকাল ১১ টায় এ ঘটনা ঘটে।

ছিনতাইয়ের শিকার নুর নাহার বেগম রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের অফিসেরচর লামার পাড়ার বিশিষ্ট ব্যবসায়ি ছৈয়দুর রহমানের স্ত্রী।

নুর নাহার বেগমের বড় ছেলে বাদল জানিয়েছেন, তাঁর মা সকাল ১১ টায় বোরকা সেলাই করার উদ্দেশ্যে চৌমুহনী স্টেশনে আসেন। একটি টেইলার্স থেকে বের হওয়া মাত্র ৩ ছিনতাইকারী তার মাকে বৌদ্ধ মন্দির সড়কে জনতা ব্যাংকের পাশে ডেকে নিয়ে যান। সেখানে যাওয়া মাত্রই ওই ছিনতাইকারীরা ভয়ভীতি দেখিয়ে নুর নাহারের পরনে থাকা তিন ভরি স্বর্ণালংকার এবং ভ্যানিটি ব্যাগে থাকা ৬ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

ঘটনার পর তিনি (বাদল) চৌমুহনী বণিক সমিতি নেতৃবৃন্দ ও রামু থানাকে মৌখিকভাবে ছিনতাইয়ের এ ঘটনা অবহিত করেন।

রামু চৌমুহনী বণিক সমবায় সমিতি লিঃ এর সভাপতি অধ্যাপক রফিকুল আলম চৌধুরী বলেন, বিষয়টি দূঃখজনক। এ ঘটনায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতারের জন্য তিনি আইনশৃংখলা বাহিনীর প্রতি আহবান জানান।

চৌমুহনী ষ্টেশনের একাধিক ব্যবসায়ি জানান, এ ধরনের ঘটনা এখন নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। সম্প্রতি এ স্টেশন ও আশপাশের এলাকায় চোর, ছিনতাইকারি, মাদকসেবীর উৎপাত অতিমাত্রায় বৃদ্ধি পেয়েছে। এরপরও প্রশাসন অপরাধীদের ধরার জন্য কোন চেষ্টা করে না। ফলে ব্যবসায়ি ও সাধারণ জনগন চরম দূর্ভোগের শিকার হচ্ছে।

রামু চৌমুহনী বণিক সমবায় সমিতি লিঃ এর সহ-সভাপতি রুহুল আমিন রকি জানিয়েছেন, চৌমুহনী স্টেশনে ইতিপূর্বে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হলেও তা দীর্ঘদিন অচল রয়েছে। ফলে অপরাধিরা নির্বিঘ্নে অপকর্ম করার সুযোগ পাচ্ছে।