জরাজীর্ণ সড়কে বিপর্যস্ত রাজাপালং কাশিয়ারবিলের ৫ হাজার গ্রামীণ জনগোষ্টির জীবন

শহিদুল ইসলাম, উখিয়া।
কক্সবাজারের উখিয়ায় দীর্ঘদিনের অবহেলা ও সংস্কার না হওয়ায় রাজাপালং ইউনিয়নের গ্রামীন সড়ক গুলো অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এ জরাজীর্ণ সড়ক সমূহ ৫ হাজার গ্রামীণ জনগোষ্টির স্বাভাবিক জীবনকে বিপর্যস্ত করে তুলেছে।

বিশেষ করে কাশিয়ারবিল (খালকুল পাড়া) এলাকার সড়ক শোচনীয় অবস্থায় রয়েছে। বর্তমানে এ সড়কে ছোট যানবাহন চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। কোন কোন ক্ষেত্রে পায়ে হেঁটে চলাচল করাটাও কষ্টকর।

এ সড়কে চলাচল করতে গিয়ে ছোট যানবাহন গুলো প্রায় সময় দূর্ঘটনার শিকার হয়। রাজাপালং ইউনিয়ন ২ নং ওয়ার্ডের জন সাধারণের যাতায়তের ৮ টি উপ-সড়ক রয়েছে যেগুলো বিগত ১০ বছর পূর্বে নির্মাণ করা হয়েছিল। এ সড়ক গুলো মেরামত না করায় বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সেতু ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে।

ইউনুছ চৌধুরীর বাড়ীর পার্শ্বের সেতু ও পুকুরিয়া সড়কের হিজোলিয়া খালের সেতু অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। জরুরী ভিত্তিতে সড়ক ও সেতু নির্মাণ কাজ করা না হলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে আরো জটিল আকার ধারণ করবে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মধ্য রাজাপালং এলাকায় স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল এর সহযোগিতায় এবং ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের রাজনৈতিক ফেলো ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দল উখিয়া উপজেলার যুগ্ন সম্পাদক এড, নাজিয়া জাহান সম্পা এ অভিযোগ উত্তাপণ করেন।

অনুষ্টিত সভায় জাতীয় স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের দায়িত্ব প্রাপ্ত সাংবাদিক, শিক্ষক, স্থানীয় জন প্রতিনিধি, রাজনৈতিক কর্মী, পেশাজীবি, ভুক্তভোগী নাগরিকগণরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ সদস্য আলহাজ শাহজাহান চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহ- সভাপতি সিরাজুল হক বিএ, জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক ইউছুপ বদরী, ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের সমন্বয়কারী সদরুল আমিন, উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি সরওয়ার জাহান চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সোলতান মাহমুদ চৌধুরী।

বক্তারা শীঘ্রই উক্ত রাস্তা সংস্কার ও ব্রীজ নির্মাণের জন্য প্রশাসনের নিকট জোর দাবি জানিয়েছেন।