আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে ফ্রান্সে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর ভাষার মেলা

ফ্রান্সের প্যারিস থেকে সাখাওয়াত হোসেন হাওলাদার:
বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী ফ্রান্স সংসদ এবং উবারভিলিয়ে মেরীর যৌথ আয়োজনে প্যারিসের ওবারভিলিয়ে শহরে পালিত হোল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

উদীচী ফ্রান্স সংসদের তিনদিন ব্যাপী অমর একুশ এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠানমালার প্রথমদিন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠানে আরোও অংশ নেয় ২৫ টি ভাষার ৩৭ টি সংগঠন। গতকাল ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ শনিবার উবারভিলিয়ের ‘লা এম্বারকাদের’ হলে স্থানীয় সময় দুপুর ২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত এই শহরের বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর সমন্বয়ে এই শহরে অবস্থানকারী বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর নিজ নিজ ভাষায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য নিয়ে মেলা হয়।

১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো কর্তৃক আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে এই দিনটি ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে এই গৌরবের ভাগিদার শুধুমাত্র বাংলা ভাষাভাষী লোকেরাই নয়, সকল জাতির। একুশ তাই প্রত্যেক জাতির মাতৃভাষা এবং নিজস্ব সংস্কৃতি রক্ষার সংগ্রামের প্রতীক হয়ে গেল ।এখন বিশ্বব্যাপী এই দিনটি উদযাপিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে উদীচী ফ্রান্স সংসদ পরিচালিত বাংলা ভাষা ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের শিশু-কিশোর এবং উদীচীর নিয়মিত শিল্পী ও নাট্যকর্মীদের ভাষা আন্দোলনের বিশেষ দৃশ্যায়নের সাথে সমবেত কণ্ঠে “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো” গানের মাধ্যমে শোক ও সংগ্রামকে তূলে ধরে শিশুদের বিভিন্ন ভাষার বর্ণমালা বহনের মধ্যদিয়ে পৃথিবীর সকল মাতৃভাষার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে উদ্বোধনী ঘোষণা করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন উবারভিলিয়ে শহরের মেয়র মেরিয়াম দারকাউই, ফান্সস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত কাজী ইমতিয়াজ হোসেন, ফ্রান্সের সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের বিভাগীয় পরিচালক মিসেস ভেরনিক শতেনে, ফ্রান্সে সদ্য প্রতিষ্ঠিত প্রথম ভাষা ও সাংস্কৃতিক ভবনের সভাপতি মিসেস সিলভি গ্লিসো এবং উদীচী ফ্রান্স সংসদের সভাপতি কিরন্ময় মণ্ডল।

উবারভিলিয়ে মেরির ‘ভি এসোসিয়েটিভ’ এর পরিচালক কার্লোস সামেদুর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ফ্রান্সস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের হেড অব চ্যান্সরী ও কাউন্সিলর হজরত আলী খান এবং ফ্রান্সস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব ও ইউনেস্কো বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি নির্ঝর অধিকারী, উবারভিলিয়ে শহরের প্রথম সহকারি মেয়র এন্টনি দাগে সহ আরও অনেকে।

এই ভাষা ও সাংস্কৃতিক মেলায় যেসব ভাষাভাষীর জাতি ও সংগঠন তাঁদের ভাষা নিয়ে অংশগ্রহণ করেন তারা হলেন বাংলা, সোনেনকি, তামুল, কুর্দি, মান্ডারিন, চাইনিজ, আরব, তামাযিত, বামবারা, পর্তুগিজ, ইংরেজি, লিংগালা, ক্রেওলা, হাছছানা, সোনাকি, ফিফে, হাইতিয়ান খ্রেয়ল, কাবিল, সের্ব, বেতে, বেরবের, ফসে, কেচ্চুয়া, ভ্রতো এবং স্পেনিস সহ আরও অনেক।

অনুষ্ঠানে অংশগ্রণকারী দেশ ছাড়াও অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীর সমারোহ ভাষা ও সাংস্কৃতিক মেলাকে উৎসব মূখর করে তুলে।

অমর একুশ এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে ফ্রান্স উদীচীর তিনদিনব্যাপী অনুষ্ঠান মালার দ্বিতীয়দিন আগামী ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ বুধবার স্থানীয় সময় বেলা ১২টায় ফ্রান্সের অবারভিলিয়ে শরের স্কয়ার এমে সেজার এ প্রস্তাবিত শহীদ মিনারের জন্য নির্ধারিত স্থানে উদীচী ফ্রান্স সংসদের উদ্যোগে অস্থায়ীভাবে নির্মিত শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণের আয়োজন করা হয়েছে।