কক্সবাজার শিল্পকলা একাডেমি নির্বাচন: প্রার্থীদের প্রচারণায় মুখর সাংস্কৃতিক অঙ্গন

অর্পন বড়ুয়া, কক্সবাজার :
কক্সবাজার জেলা শিল্পকলা একাডেমির কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে কক্সবাজার সাংস্কৃতিক অঙ্গন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, মুঠোফোন-তো আছেই। শহরের অলিগলিসহ ব্যস্ততম প্রধান সড়কেও ভোটারের দেখা পেয়ে হঠাৎ থমকে দাঁড়াচ্ছেন প্রার্থীরা। ভোট চাইছেন নিজের জন্য। এছাড়া কক্সবাজার পাবলিক লাইব্রেরী, শহীদ মিনার, সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর অফিসও প্রার্থীদের বিরামহীন প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে। পাশাপাশি বিভিন্ন টং দোকানে সাংস্কৃতিক কর্মীদের চা-এর আড্ডায় ভোট চাইছেন অনেকেই।

আর মাত্র একদিন পর অনুষ্ঠিত হবে কক্সবাজার জেলা শিল্পকলা একাডেমির কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন। শনিবার (২০ জানুয়ারি) জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্নভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সুষ্ঠু ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠানের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মাহিদুর রহমান।

জানা গেছে,কক্সবাজার শিল্পকলা একাডেমি কার্যনির্বাহী কমিটির ১০টি পদে মোট ২০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। এর আগে ১৭ ডিসেম্বর শিল্পকলা একাডেমির নির্বাচনের তপশীল ঘোষণা করা হয়। পরে ৩ জানুয়ারি প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। এর পর থেকে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে।এবার ৩৪৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

বকুল-স্বপন পরিষদের আনারক প্রতীকে সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী নাট্য নির্দেশক স্বপন ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করছি। আমরা চাই শুদ্ধ সংস্কৃতির বিকাশ। এখানে কেউ কারো শত্রু নয়। সবাই সবার শুভানুধ্যায়ী। আমরা সবাই একই ক্লাসের ছাত্র। জয়-পরাজয় যাই হোক না কেন; আগামীতে ঠিকই সবাইকে নিয়ে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের অগ্রযাত্রাকে বেগবান করবো।

খোরশেদ-বিশ্বজিত পরিষদের মাছ প্রতীকে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী খেলাঘর সংগঠক বিশ^জিত পাল জানিয়েছেন, আমি চাই সুন্দর এবং সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হোক। সাংস্কৃতিক কর্মীরা সুচিন্তিতভাবে ভোট প্রদান করে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করুক। জয়ে ব্যাপারে আশাবাদী বিশ্বজিত পাল বলেন, আমরা সবাই সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সদস্য। জয়-পরাজয়-তো থাকবেই। আমরা একজন সাংস্কৃতিককর্মী এটিই আমাদের বড় পরিচয়।

জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাংস্কৃতিক অফিসার আয়াজ মাবুদ জানিয়েছেন, আমরা অবাধ, সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রার্থী ও ভোটারদের মাঝে যে প্রাণচাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে; কক্সবাজারের সাংস্কৃতিক অগ্রযাত্রায় এবং শিল্পকলা একাডেমির উন্নয়নে এটি বড় শক্তি হিসেবে কাজ করবে। প্রার্থী ও ভোটার উভয়ের মাঝে বিরাজমান সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ নির্বাচন পরবর্তী সময়েও যেন সেটি বজায় থাকে। পাশাপাশি সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচনের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন এই কর্মকর্তা।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here