এলাকায় চরম অসন্তোষ ও আইন-শৃঙ্খলা অবনতির আংশকা: উখিয়ায় রাস্তা করার নামে লাঠিয়াল বাহিনীর তান্ডব

পলাশ বড়ুয়া, উখিয়া:
উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের রেজুরকুল বড়ুয়া সম্প্রদায়ের বসতভিটার উপর দিয়ে নতুন ভাবে রাস্তা করার নামে ১০পরিবারের জায়গার উপর প্রভাব খাটিয়ে গাছপালা কেটে তান্ডব চালানোর ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুরো এলাকাবাসীর মাঝে চরম অসন্তোষ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। আইনশৃঙ্খলার অবনতির আশংকা।

জানা যায়, একটি প্রভাবশালী মহল ক্ষমতার অপব্যবহার করে স্থানীয় বড়ুয়া পরিবারের জোত জায়গার উপর দিয়ে হঠাৎ করে রাস্তা করার নামে নারিকেল, সুপারি গাছসহ ২শতাধিক বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে ফেলে।

রোববার (১৪ জানুয়ারী) সকালে ৭টার দিকে স্থানীয় চিহ্নিত একদল লাঠিয়াল বাহিনী দা, খুন্তি, কোড়াল, করাত ইত্যাদি সরঞ্জাম নিয়ে হুমকি, ধমকি দিয়ে একের পর গাছপালা কেটে তছনছ করে দেয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রায় ২ ঘন্টা ধরে ১৪০জনের সন্ত্রাসী লাঠিয়াল বাহিনী রাস্তা করার নামে বেপরোয়া ভাবে এলোপাতাড়ী কাটাতারের বেষ্টিত ঘেরা টেংরা ভেঙ্গে তছনছ করে দেয় এবং নারিকেল গাছ, সুপারি গাছ সহ অসংখ্য গাছপালা কেটে সাবাড় করে ফেলে। এতে ১০টি পরিবারের কয়েক লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধিত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এ সময় সশস্ত্র লাঠিয়াল বাহিনী ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের নারী-পুরুষ সবাইকে হত্যার হুমকিসহ ভয়ভীতি দেখিয়ে ২ ঘন্টা ধরে তান্ডব চালায়।

ক্ষতিগ্রস্থরা হল রেজুরকুল গ্রামের মৃত পরানহরি বড়ুয়ার পুত্র হরেন্দ্র বড়ুয়া, প্রেমানন্দ বড়ুয়া, বিনয়শ্রী বড়ুয়া, মৃত রাজেন্দ্র বড়ুয়ার পুত্র আংকি মোহন বড়ুয়া, শান্তি মোহন বড়ুয়া, মৃত ধর্মরাজ বড়ুয়ার পুত্র নিমাংশু বড়ুয়া, মৃত হেমন্দ্র বড়ুয়ার পুত্র সুনন্দ বড়ুয়া, মৃত উলা মিয়ার পুত্র মোকতার আহমদ।

ন্যাক্কারজনক এ ঘটনাটি এলাকাবাসীর মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে সর্বত্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্য প্রেমানন্দ বড়ুয়া। অনেকেই ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করে রাস্তা করার নামে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা দাবী জানিয়েছেন।

ক্ষতিগ্রস্থ হরেন্দ্র বড়ুয়ার বলেন, আমাদের জায়গার উপর দিয়ে কারো রাস্তার প্রয়োজন হলে স্থানীয় মেম্বার, চেয়ারম্যান নিয়ে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে রাস্তার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা করা যেত। রাতারাতি কাউকে কিছু না বলে ভোর সকালে লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে কেন ধরণের অন্যায় ভাবে আমাদের জায়গার উপর রোপিত গাছপালা কেটে ক্ষতি করল। এটার বিচার হওয়া উচিত। অথচ আমাদের বাড়ির পাশে সকলের যাতায়াতের স্বার্থে আদিকাল থেকে একটি পুরাতন রাস্তা বিদ্যামান রয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্থ সুনন্দ বড়ুয়া জানান, এ ধরনের অন্যায় দেখে মনে হয় দেশে কোন আইন-কানুন নেই। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক বিচার হওয়া উচিত।

এ বিষয়ে বড়ুয়া সম্প্রদায়ের লোকজন স্থানীয় চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীকে বিষয়টি জানানোর পর উখিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে বলে জানা গেছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আবুল খায়ের বলেন, রেজুরকুল গ্রামের বড়ুয়া সম্প্রদায়ের জায়গার উপর জোর পূর্বক রাস্তা করার নামে গাছপালা কেটে ক্ষয়ক্ষতির একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি অতি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এ রিপোর্ট লেখাকালীন সময় বিষয়টি নিয়ে জানার জন্য রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর ব্যবহৃত মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তিনি মোবাইল রিসিভ না করায় তাঁর বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।