বাংলাদেশের অনেক মানুষ এখনো মায়ানমার জেলে আটকা,শুনেছি সেই বর্বরতার কথাও

সিপ্ত বড়ুয়াঃ

মালেশিয়া নিয়ে যাওয়ার নামে যখন টেকনাফ থেকে ইঞ্জিন চালিত বোটে করে নিয়ে যাওয়া হয় থাইল্যান্ড এর মানুষ খেকো জংগলে। এবং মাঝে মধ্যে নিয়ে যাওয়া হয় মায়ানমার এর জেলখানায়। আর সেই জেলখানায় পচেঁ মরতে হয় বাংলার সাধারণ মানুষেরদের।দেখেছি অনেকবার পেপার – পত্রিকায় রিপোর্ট করার পরে ও এই ব্যাপারে সরকার কোন উদ্যোগ নেয়নি কখনো। প্রায় মানুষ জানে মালেশিয়া নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নিয়ে গিয়ে মেরে ফেলা বা মায়ানমারের জেলে পচিঁয়ে মারার পথ এখন বন্ধ।

কিন্তু সাম্প্রতিক এক খবরে জেনেছি মিন্টু বড়ুয়া (২০) নামের এক লোক সহ আরো ৫০ জনের মত মানুষ কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার শৈলের ঢেবা নামক গ্রাম থেকে মালেশিয়া যাওয়ার কথা বলে বেরিয়েছিল প্রায় দুই বছর আগে, কিন্তু এখন আর তাদের কোন খোজ পাওয়া যাচ্ছে না। তবে তাদের পরিবার এর সাথে কথা বলে জানা গেছে তারা অনেকেই মায়ানমার থেকে তাদের ফোন করেছে, এই বলে যে তারা মায়ানমার এর জেলে আছে।

তারা অতি দরিদ্র বলেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মালেশিয়া যেতে চেয়েছিল, কিন্তু নিয়তির নির্মম পরিহাস। এখন তাদের পরিবার তাদের পাওয়ার আশায় ব্যাকুল হয়ে বসে আছে। এবং তাদের হারিয়ে সেই পরিবারগুলো এখন দিনের ভাত দিনে খেতে পারছে না। এমতাবস্থায়, স্বামী- ছেলে হারানো পরিবারগুলোর একটাই চাওয়া তাদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সরকারি উদ্যোগে যাতে তারা তাদের হারানো মায়ানমার এর জেলখানায় আটকা থাকা স্বজনদের ফিরে পায়।