রামুতে পাঠ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে ইউএনও সেলিনা কাজী-পরিপূর্ণ মানুষ হতে গেলে, বই পড়ার কোন বিকল্প নাই

নিজস্ব প্রতিবেদক, রামু।
আমাদের ভাল মানুষ হতে হবে। ভাল মানুষ হতে হলে, বই পড়ার বিকল্প কিছুই নেই। যত বই পড়বেন, ততই শিখবেন। ভাল বই নিজেকে সৃজনশীল, নান্দনিক ও সুস্থ বোধ-বুদ্ধি সম্পন্ন হতে শেখায়। বাংলা ভাষার শব্দ চয়ন, শব্দ শৈলী জানতে হলে, অবশ্যই বই পড়তে হবে। পরিপূর্ণ মানুষ হতে গেলে, বই পড়ার কোন বিকল্প নাই। মনের যন্ত্রণা, দুঃখ ঘোচাতেও একটা জগতে যেতে হবে। সেই জগতটা হচ্ছে বইয়ের জগৎ।

শনিবার ৯ এপ্রিল বিকাল ৪টায় রামু পাবলিক লাইব্রেরীতে অনুষ্ঠিত পাঠ প্রতিযোগিতা-২০১৫ এর পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিনা কাজী প্রতিযোগী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে এ সব কথা বলেন।

‘পড়িলে বই আলোকিত হই’ এ প্রতিপাদ্যে রামু পাবলিক লাইব্রেরীর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানের সভাপতি ইউএনও সেলিনা কাজী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, তোমরা রামু পাবলিক লাইব্রেরীতে আসবে, শ্রেণি শিক্ষার পাশাপাশি নান্দনিক সৃজনশীল বই পড়বে এবং নিজেকে উপযুক্ত করে গড়ে তোলবে।

রামু পাবলিক লাইব্রেরীর সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মজিবুল হকের স্বাগত বক্তব্যে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মাহাবুব উল করিম, পরিবেশবিদ হাসিবুর রহমান, রামু কলেজের অধ্যাপক নিজামুল হক, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) রামু’র সভাপতি মাষ্টার মোহাম্মদ আলম, রামু প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সুনীল বড়ুয়া, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন রামু উপজেলার সভাপতি হাফেজ আহমদ প্রমুখ।

পাঠ প্রতিযোগিতা ২০১৫’র আহ্বয়ক অধ্যাপক নীলোৎপল বড়ুয়া’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, সূর্যের হাসি ক্লিনিক ব্যবস্থাপক খন্দকার দেলোয়ার হোসেন, রামু পাবলিক লাইব্রেরীর সদস্য মো. আবু তাহের, এ কে খাঁন, ইঞ্জিনিয়ার তরুন বড়ুয়া, মানসী বড়ুয়া, পাঠ প্রতিযোগিতা ২০১৫’র যুগ্ম-আহ্বয়ক ও রামু প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি খালেদ শহীদ, রামু পাবলিক লাইব্রেরীর লাইব্রেরিয়ান ও দীপশিখা গালর্স একাডেমীর প্রধান শিক্ষক আবু হান্নান, এফডিএসআর বার্তা বাহক খন্দকার মমিনুল ইসলাম, প্রতিযোগী শিক্ষার্থী অর্পিতা শর্মা সুরেখা ও কিশোর শর্মা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে রামু পাবলিক লাইব্রেরী আয়োজিত পাঠ প্রতিযোগিতা ২০১৫ এ অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন অতিথিরা।

প্রতিযোগিতায় রামু বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী অর্পিতা শর্মা সুরেখা প্রথম, রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র সজীব বড়ুয়া দ্বিতীয় ও কিশোর শর্মা তৃতীয় স্থান অধিকার করেন।

এছাড়াও মূল্যায়ন পরীক্ষায় ভাল ফলাফল অর্জনকারী রামু বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নওশীন তাবাচ্ছুম মুমু, মেহজাবীন বিনতে তৌহিদ, সুলতানা নাসরিন, শারমিন আহমদ পিংকি, সিজা ফেরদৌসী ছাহ্লান, তানজিনা হক হেলালী, আলহাজ্ব ফজল আম্বিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাইমুন সোহেল সাকিব, মোহাম্মদ ওসামা, মিজানুর রহমান, উহ্লাছিং মার্মা, মো. আবদুর রহিম, মেহেরাজ সালাম, মো. জিসান ফরহাদ, রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মর্জিনা আক্তার, মো. সরওয়ার আহমদ, মো. আবদুল আজিজকে উৎসাহ পুরস্কার প্রদান করা হয়।

পাঠ প্রতিযোগিতা ২০১৫’র আহ্বয়ক অধ্যাপক নীলোৎপল বড়ুয়া আমাদের রামু ডটকম কে জানান, রামু পাবলিক লাইব্রেরীর আয়োজনে গত বছরের ১০ এপ্রিল পাঠ প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করেন, তৎকালীন ইউএনও মো. মাসুদ হোসেন।

মাধ্যমিক পর্যায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে সৃজনশীল, নান্দনিক ও সুস্থ বোধ-বুদ্ধি সম্পন্ন মনস্বিতা বিকাশের জন্য পাঠাভ্যাস বৃদ্ধির লক্ষে ‘পাঠ প্রতিযোগিতা-২০১৫’ আয়োজন করা হয়।

প্রথম পর্যায়ের এ প্রতিযেগিতায় রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, রামু বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, আলহাজ্ব ফজল আম্বিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম ও দশম শ্রেণির ২৪জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

শ্রেণি শিক্ষার পাশাপাশি ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে পাঠ্যক্রম বহির্ভূত সৃজনশীল বই পড়ার মানসিকতা সৃষ্টি ও ছাত্র-ছাত্রীদের লাইব্রেরীমুখি করার জন্যই রামু পাবলিক লাইব্রেরী এ পাঠ প্রতিযোগিতা কর্মসূচীর আয়োজন করে বলে আমাদের রামু ডটকম কে জানান, পাঠ প্রতিযোগিতা ২০১৫’র যুগ্ম-আহ্বয়ক সাংবাদিক খালেদ শহীদ।