উখিয়ায় বাঁশ বাগান ও গাছ কর্তনের অভিযোগ

শহিদুল ইসলাম,উখিয়া।
উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের চেংখোলা গ্রামে পৈত্রিক সম্পত্তি দখল করে নিতে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন প্রজাতির গাছ-গাছালি কেটে ফেলে বাঁশ বাগান আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার ৭ এপ্রিল সকাল ১০টায় রাজাপালং ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের চেংখোলা গ্রামের মৃত হাজী বাঁচা মিয়ার ২ ছেলে ফরিদ আলম ও নুরুল আলমের মধ্যে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী ও এলাকার ইউপি সদস্য রুহুল আমিন একাধিকবার শালিসী বৈঠক বসেও কোন সুরাহা দিতে পারেনি। ফলে জমি সংক্রান্ত ঘটনা নিয়ে ২ ভাইয়ের দ্বন্দ্ব প্রকট আকার ধারণ করে। যে কোন মুহুর্তে এ ঘটনা নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সূত্রপাত হতে পারে বলে এলাকাবাসীর আশংকা আছে।

অসহায় ফরিদ আলম বলেন, পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া আমার অংশ থেকে ২৭ শতক অর্থাৎ ৮১ কড়া পিএফ জমি নুরুল আলম ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে জোরপূর্বক জবর দখলের পাঁয়তারা চালিয়ে আসছে। ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে আমাকে ও আমার পরিবার পরিজনের উপর প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে আসছে। তাছাড়া গত সোমবার সৃৃজিত বিভিন্ন প্রজাতির বনায়নের গাছ কেটে নিয়ে প্রায় ১০ হাজার টাকার মত ক্ষতি সাধন করে। শুধু তাই নয় বৃহস্পতিবার সকালে বাঁশ বাগান আগুনে পুড়িয়ে প্রায় ১০ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে। এ ঘটনা নিয়ে অসহায় ও দরিদ্র ফরিদ আলম ন্যায় বিচারের আশায় মেম্বার-চেয়ারম্যানদের নিকট ধর্ণা দিতে দিতে এক প্রকার শারিরীক ও মানসিক ভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন।

ইউপি মেম্বার রুহুল আমিন বলেন, বিষয়টি শান্তিপূর্ণ ভাবে সমাধান করার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু দূবৃর্ত্ত নুরুল আলম গায়ের জোরে বিচার অমান্য করে ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে ফরিদ আলমের জমি জবর দখলের পাঁয়তারায় লিপ্ত হয়।