উখিয়ায় প্রতিবাদ জানাতে কলাগাছ রোপন: নেতাকর্মীদের রাস্তায় বিক্ষোভ

শহিদুল ইসলাম, উখিয়া।
কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সরকার দলীয় আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমিনুল হক আমিনকে নৌকা প্রতীক প্রদানের দাবি জানিয়ে মরিচ্যা বাজার এলাকায় প্রায় ২ শতাধিক কলা গাছ রোপন করে অভিনব প্রতীকি প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

৫ এপ্রিল রাত সাড়ে ৮ টা থেকে ১১ পর্যন্ত কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের মরিচ্যা অংশের উভয় পার্শ্বে ২ শতাধিক কলাগাছ রোপন করেন। এ সময় তৃনমূলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন ও পথসভা করেন।

সাধারণ নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমিনুল হক আমিন দলীয় প্রতীক না পেলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন।

বিগত দিনে উখিয়া-টেকনাফে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবদুর রহমান বদির ঘনিষ্টজন হওয়ায় পুরো হলদিয়াপালং ইউনিয়নে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। এলাকার সুখে দুঃখে মানুষের পাশে ছিলাম।

হলদিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ৯ ওয়ার্ডের সকল সভাপতি ও সম্পাদক সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমিনকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানান।

গত ক’দিন ধরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে স্বাক্ষরিত আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উখিয়া উপজেলার ৫ ইউনিয়নে দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থীদের ব্যাপারে খোঁজ খবর নিচ্ছেন বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন।

মন্ত্রী পরিষদের সচিব শফিউল আলম এর ছোট ভাই ও কোটবাজার হাকিম আলী কেজি স্কুলের অধ্যক্ষ শাহ আলম হলদিয়াপালংয়ে নৌকা প্রতীক পাচ্ছেন এমন গুজবে সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এর সমর্থকরা এ কাজ করেন।

হলদিয়াপালং ইউনিয়নের সাবেক ভারপ্রাপ্ত জনপ্রিয় চেয়ারম্যান আমিনুল হক আমিনকে ষড়যন্ত্র করে নৌকা প্রতীক না দিলে কলাগাছ নিয়ে প্রতীকি প্রতিবাদ অব্যাহত থাকবে।

হঠাৎ করে জনবিচ্ছিন্ন অপরিচিত কোন ব্যক্তিকে নৌকা দিলে ভরাডুবি হওয়ার আশংকা প্রকাশ করেছেন সাধারণ ভোটাররা।

হলদিয়াপালং ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের ভোটার ও আওয়ামীলীগ সমর্থক আবদুস সালাম (৫০) বলেন, বিগত ১০/১৫ বছর ধরে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমিনুল হক আমিনকে আমাদের সুখে দুঃখে পাশে পেয়েছি। উপজেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতারা দলীয় মনোনয়ন যদি না দেন তাহলে ভোট দিতে যাব না। যদি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয় আমিনকে ভোট দেব।

২ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গুরা মিয়া বলেন, ভারপ্রাপ্ত আমিন চেয়ারম্যানের বিকল্প নেই। তিনি সাধারণ নেতাকর্মীদের সব সময় পাশে ছিলেন। তার হাত ধরে হলদিয়াপালং ইউনিয়নে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এছাড়াও স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবদুর রহমান বদির সহযোগিতায় এলাকায় স্কুল, মাদ্রাসা, মন্দির, রাস্তাঘাট সহ বিভিন্ন কাজ করে যান।

৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী আলী হোসেন বলেন, রাত সাড়ে ৮ টার দিকে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা হঠাৎ কলা গাছ নিয়ে রাস্তায় নেমে পড়েন। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমিন চেয়ারম্যানকে প্রার্থী হিসেবে দেখতে চাই। হলদিয়াপালং

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ফজল করিম বলেন, কলা গাছ রোপনের কথা শুনেছি। এছাড়া বিস্তারিত বলতে পারছিনা।

হলদিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইসলাম মেম্বারের মুঠো ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

হলদিয়াপালং ইউনিয়নের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমিনুল হক আমিন জানান, আমার সমর্থকরা এ কলাগাছ রোপন করেছেন।