রামুর চাকমারকুলে বসত বাড়িতে ফের ডাকাতি

সোয়েব সাঈদ, রামু।

রামু উপজেলার চাকমারকুলে বসত বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। সংঘবদ্ধ ডাকাতদল স্বর্ণের অংলকারসহ প্রায় ৪ লাখ টাকার মালামাল লুট করেছে।

শনিবার ২ এপ্রিল দিবাগত রাত তিনটায় উপজেলার চাকমারকুল ইউনিয়নের শ্রীমুরা নাসিরাপাড়া এলাকার হাজ্বী আবদুল মতলব এর বাড়িতে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

ডাকাতের মারধরের শিকার হয়েছেন, গৃহকর্তা ও দশম শ্রণি পড়ুয়া এক ছাত্রী।

এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

গৃহকর্তা হাজ্বী আবদুল মতলব আমাদের রামু কে জানিয়েছেন, ১৫/২০ জন মুখোশ পরিহিত সংঘবদ্ধ ডাকাতদল জানালার গ্রিল ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে। এসময় ডাকাতরা অস্ত্রের মুখে পরিবারের সদস্যদের জিম্মি করে এবং বাড়ির বিভিন্ন কক্ষে আসববাপত্র তছনচ করে ৬ ভরি স্বর্ণের অলংকার, ৫০ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মালামাল নিয়ে সটকে পড়ে।

ডাকাতি চলাকালে ওই ইউনিয়নের চিহ্নিত ডাকাত শহীদুল ইসলাম বাইট্রাকে চিনে ফেলায় এবং আর্তচিৎকার দেয়ায় ডাকাতরা দশম শ্রণির ছাত্রী মালেকা খাতুন এবং গৃহকর্তা হাজ্বী আবদুল মতলবকে মারধর করে।

রামু থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রভাষ চন্দ্র ধর রবিবার সকালে ঘটনাস্থলে যান। তিনি এ ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দেন।

জানা গেছে, এ ঘটনায় পুলিশ রবিবার সকালে মো. ওসমান নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে।

সে রামুর চাকমারকুল ইউনিয়নের শ্রীমুরা পূর্বপাড়ার মৃত মো. হোসেনের ছেলে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এলাকায় ইয়াবা সহ মাদকের ছড়াছড়ি চলছে। এ কারণে চুরি-ডাকাতিও বেড়েছে।

সম্প্রতি ওই এলাকায় কয়েক দফা ডাকাতির ঘটনায় জনমনে আতংক বিরাজ করছে।