১১টি ইউনিয়নের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সংবাদ সম্মেলন রামু উপজেলা আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে মনোনয়ন বাণিজ্যের অভিযোগ

সোয়েব সাঈদ, রামু।
রামু উপজেলায় তৃণমূলের মতামত উপেক্ষা করে মনোনয়ন বাণিজ্যের মাধ্যমে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী ঘোষণার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছেন উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। সোমবার ২৮ মার্চ সন্ধ্যা ৬টায় রামু প্রেস ক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়- উপজেলা আওয়ামীলীগ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ উপেক্ষা করে অর্থ ও মনোনয়ন বাণিজ্যের বিনিময়ে জনবিচ্ছিন্ন বিশেষ ব্যক্তিকে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ থেকে একক প্রার্থী ঘোষণা করা হচ্ছে। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রকৃত ত্যাগী নেতাদের আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়ার কথা রয়েছে। অথচ রামুর প্রত্যেক ইউনিয়নে বিএনপি-জামায়াত ও স্বাধীনতা বিরোধী লোকজনকে কাউন্সিলর করে পাতানো নির্বাচনের মাধ্যমে বিশেষ ব্যক্তিকে প্রার্থী ঘোষণা করা হচ্ছে।

এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজারকুল ইউনিয়ন থেকে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী রামু উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জাফর আলম চৌধুরী।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত মনোনয়ন প্রত্যাশীরা অভিযোগ করেন, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ সহ অন্যান্য সহযোগি সংগঠনের ১১টি ইউনিয়নে অনেক দলীয় প্রতীক নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন। কিন্তু উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতবৃন্দ এসব মনোনয়ন প্রত্যাশীদের না জানিয়ে অর্থের বিনিময়ে প্রার্থী ঘোষনা করে যাচ্ছেন। যা কেন্দ্রিয় আওয়ামীলীগের নির্দেশনা পরিপন্থি ও অগঠনতান্ত্রিক।

সংবাদ সম্মেলনে রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রিয়াজ উল আলম সহ রামু উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন কোম্পানী, খুনিয়াপালং ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিক আবদুল মাবুদ, ঈদগড় ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমদ ভূট্টো, চাকমারকুল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার, দক্ষিন মিঠাছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহবায়ক ইউনুচ ভূট্টো, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সম্পাদবক ফরিদুল আলম, গর্জনিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের অর্থ সম্পাদক আবছার কামাল সিকদার, রাজারকুল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য মুফিজুর রহমান, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আনছারুল আলম, রশিদনগর আওয়ামীলীগের সদস্য মিজানুল করিম, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোস্তাক আহমদ প্রমূখ।