সর্বশেষ সংবাদঃ

ব্রণ নিরাময়ে প্রচলিত কার্যকর পন্থা

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
রাসায়নিক পণ্যের চাইতে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে নিরাময় করুন ব্রণ।
ব্রণ বা ফুসকুড়ি কমাতে এবং এর থেকে হওয়া দাগ দূর করতে রয়েছে প্রচলিত ও প্রতিষ্ঠিত পদ্ধতি।

রূপচর্চাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে এসব পন্থা নিয়েই এই আয়োজন।

লেবু:

একটা লেবু কেটে ত্বকে ঘষুন। চাইলে পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে ত্বক পরিষ্কার ও এক্সফলিয়েট করতে ব্যবহার করতে পারেন। লেবুর অ্যাসিড ব্রণ শুকাতে ও দাগ কমাতে সাহায্য করে।

টি ট্রি অয়েল:

পরিষ্কারক বা ক্লিনজারে কয়েক ফোঁটা টি ট্রি তেল মেশান। এটা ব্রণ কমাতে সাহায্য করে। তাছাড়া এই তেল হোয়াইট এবং ব্ল্যাক হেডস ওঠার সমস্যা থেকেও মুক্তি দেয়।

দারুচিনি:

এর ব্যাকটেরিয়ারোধী উপাদান ব্রণ কমাতে পারে। তিন টেবিল-চামচ মধুতে এক টেবিল-চামচ দারুচিনি মিশিয়ে ফেইস মাস্ক তৈরি করুন।

মাস্কটি মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।

গ্রিন টি:

বলা হয়ে থাকে গ্রিন টি’তে আছে প্রদাহরোধী উপাদান। দুই টেবিল-চামচ গ্রিন টি’র পাতা এক কাপ পানিতে ১০ মিনিট ধরে ভিজিয়ে রাখুন।

একটি তুলার বল এই পানিতে ডুবিয়ে সরাসরি ত্বকে লাগান। দশ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।

ডিম:

লোমকূপ টান টান করতে ডিম ভালো কাজ করে। মধুর সঙ্গে ডিমের সাদা অংশ মিশিয়ে মুখে লাগান। প্যাকটা ১০ থেকে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

অ্যাপল সাইডার ভিনিগার:

এর ব্যাক্টেরিয়ারোধী উপাদান ব্যাকটেরিয়া থেকে হওয়া ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে। এক ভাগ অ্যাপল সাইডার ভিনিগারের সঙ্গে দুই ভাগ বিশুদ্ধ পানি মিশিয়ে ব্রণ আক্রান্ত ত্বকে টোনার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন ।

মধু:

প্রাকৃতিক অ্যান্টিসেপ্টিক যা ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে। আক্রান্ত স্থানে মধু লাগিয়ে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।

বরফের টুকরা:

সংক্রমণ ও লালচেভাব দূর করতে বরফ খুব ভালো কাজ করে। ব্রণ আক্রান্ত স্থানে বরফ ঘষুন ভালো ফলাফল পাবেন।

মন্তব্য করুন

(বিঃ দ্রঃ আপনার ইমেইল গোপন রাখা হবে) Required fields are marked *

*

Shares