সর্বশেষ সংবাদঃ

লামায় চাকরি জাতীয়করণের দাবীতে সিএইচসিপিদের অবস্থান কর্মসূচী পালন

মো: ইউছুপ মজুমদার :

চাকরি জাতীয়করনের দাবীতে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছে বান্দরবানের লামা উপজেলার কমিউনিটি ক্লিনিকে কমর্রত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি)রা। কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে শনিবার (২০ জানুয়ারী) লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে এ অবস্থান কর্মসূচী পালন ও চাকরি জাতীয়করণের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন সিএইচসিপিরা।

অবস্থান কর্মসূচীকালীন সময়ে উপজেলার ২৬টি কমিউনিটি ক্লিনিক সেবা বন্ধ ছিল। কর্মসূচী চলাকালীন সময় বক্তব্য দেন, সিএইচসিপি এসোসিয়েশনের বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি মো: মাসুদ খাঁন, সহ-সভাপতি জ্যোতিষ বড়ুয়া, লামা উপজেলা সিএইচসিপি এসোসিয়েশনের সভাপতি মো: আব্দুছ ছালাম প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন, গ্রামের জনগণের দোড়গোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেওয়ার প্রধান মাধ্যম কমিউনিটি ক্লিনিক। সারাদেশে এই প্রতিষ্ঠানে সাড়ে ৪ হাজার মুক্তিযোদ্ধার সন্তানসহ প্রায় ১৪ হাজারের মত কর্মচারী কমর্রত রয়েছেন। সরকারের স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেওয়ার জন্য সরকারের নির্দেশ ক্রমে নিরলস চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাওয়া সত্বেও প্রায় ১৪ হাজার সিএইচসিপি পরিবার সরকারের দেওয়া সকল সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। যার কারণে সিএইচসিপি পরিবার মানবেতর জীবন যাপন করছে। অতি দ্রুত সিএইচসিপি দের চাকুরী জাতীয়করণ না হলে সারাদেশের সকল সহকর্মীরা একযোগে রাজধানী ঢাকায় আমরণ অনশন কর্মসূচিতে যাওয়ার ঘোষণা দেন। এসময় উপজেলার ২৭জন সিএইচসিপি উপস্থিত ছিলেন। তাদের দাবী, ‘শেখ হাসিনার অবদান, কমিউনিটি ক্লিনিক বাঁচায় প্রাণ স্লোগানকে বাস্তবে রূপ দিতে অতি দ্রুত সিএইচসিপিদের চাকুরি জাতীয়করণ করা হোক।

লামা উপজেলা সিএইচসিপি এসোসিয়েশন সভাপতি আব্দুছ ছালাম বলেন, ২০১১ সালে যোগদানকৃত যে বেতনে চাকুরী নিয়েছি এখন পর্যন্ত সর্বসাকুল্যে বেতন পাচ্ছি।

জেলা সিএইচসিপি এসোসিয়েশন সহ সভাপতি জ্যোতিষ বড়ুয়া বলেন, গ্রামীণ জনগোষ্ঠীকে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার কাজ সিএইচসিপিরাই করছে। মহিলা সিএইচসিপিরা সিএসবি প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে গ্রামীণ ও পিছিয়ে এলাকায় নরমাল ডেলিভারী সফলতার সাথে সম্পন্ন করছে। অথচ আমাদের চাকরির বয়স প্রায় ছয় বছর হলেও ইনক্রিমেন্টসহ সরকারি অনেক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত রাখা হয়েছে।

জেলা সিএইচসিপি এসোসিয়েশন সভাপতি মাসুদ খাঁণ বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষিত কর্মসূচী অনুসারে ২০,২১,২২ জানুয়ারী স্ব স্ব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অবস্থান কর্মসূচী পালন, ২৩ জানুয়ারী সিভিল সার্জন কার্য্যালয়ে অবস্থান কর্মসূচী ও স্মারকলিপি প্রদান এবং ২৪, ২৫ জানুয়ারী কর্মবিরতি পালিত হবে। এরপরও দাবী আদায় না হলে কেন্দ্রীয় কমিটির ঘোষনা অনুযায়ী যে কোন কর্মসূচী পালনে আমরা প্রস্তুত আছি।

মন্তব্য করুন

(বিঃ দ্রঃ আপনার ইমেইল গোপন রাখা হবে) Required fields are marked *

*

Shares