সর্বশেষ সংবাদঃ

রোহিঙ্গা বহনকারী নৌকাডুবি, উদ্ধার ৩

কক্সবাজার দিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টার সময় রোহিঙ্গাদের বহনকারী একটি নৌকাডুবির পর তিনজনকে উদ্ধার করা হয়েছে।

ওই নৌকায় ৩৫ জন ছিলেন বলে উদ্ধার পাওয়া এক নারী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন।খবর বিডিনিউজের।

টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের সদস‌্য মো. আলী জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নাফ নদীর জাদিমুরা পয়েন্টের বিপরীতে মিয়ানমারের জলসীমায় নৌকাটি ডুবে যায়।

পরে সকাল ৯টার দিকে বাংলাদেশি অংশ থেকে জেলেদের সহায়তায় তিন রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধার পাওয়া তিনজনের মধ‌্যে রেহেনা আক্তার নামের একজন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সকালে তারা ৩৫ জন ওই নৌকায় চড়ে নাফ নদী পার হওয়ার চেষ্টা করেন।

নৌকার আরোহীদের মধ‌্যে অনেকের মৃত‌্যু হয়ে থাকতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

স্থানীয় জেলে সুমন জলদাশ বিডিনিউজ টোয়োন্টফোর ডটকমকে বলেন, সকালে তারা জাদিমুরা পয়েন্টের বিপরীতে নদীতে একটি নৌকা ডুবতে দেখেন। পরে কয়েকজন রোহিঙ্গাকে সাঁতার কেটে বাংলাদেশের জলসীমা ভাসতে দেখে স্থানীয় জেলেরা তাদের উদ্ধার করেন।

বিজিবির টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফনেন্ট কর্নেল আবুজার আল জাহিদ বলেন, নাফ নদীতে রোহিঙ্গাদের বহনকারী নৌকাডুবি ও কয়েকজনকে উদ্ধার করার কথা তারা ‘শুনেছেন’।

এর আগে ভোর রাতে নাফ নদীর তিনটি সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টার সময় চারটি নৌকা ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে বিজিবির টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. আবু রাসেল সিদ্দিকী জানান।

তিনি বলেন, “ফেরত পাঠানো চার নৌকায় অন্তত ৪০ জন রোহিঙ্গা ছিল।”

গত ৯ অক্টোবর মিয়ানমারের সীমান্ত রক্ষাবাহিনীর তিনটি নিরাপত্তা চৌকিতে ‘বিচ্ছিন্নতাবাদীদের’ হামলা ঘটনার পর রাখাইন রাজ‌্যে দেশটির সেনা বাহিনীর অভিযানের মুখে রোহিঙ্গারা পালিয়ে বাংলাদেশে আসার চেষ্টা করছে। সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কঠোর অবস্থানের মধ‌্যেও ফাঁক-ফোকর গলে অনেক রোহিঙ্গাই ঢুকে পড়েছেন বাংলাদেশে।

আগুন দিয়ে ঘর পুড়িয়ে দেওয়ার পর রাখাইনে কীভাবে হত‌্যা-নির্যাতন-ধর্ষণ চলছে সেই বিবরণও বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গারা সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেছেন।

মন্তব্য করুন

(বিঃ দ্রঃ আপনার ইমেইল গোপন রাখা হবে) Required fields are marked *

*

Shares