মাতারবাড়ীর মেম্বার প্রার্থী টাকার বস্তা নিয়ে মাঠে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া।
দ্বীপ উপজেলার মহেশখালীর সাত ইউপিতে ২২ মার্চ মঙ্গলবার নির্বাচন অনুষ্টিত হবে। নির্বাচনে মাতারবাড়ী ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে অনেক মেম্বার প্রার্থী তাদের স্ব স্ব ওয়ার্ডে ভোটারদের মন জয় করতে মাঠে নামলেও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের জাকের হোছাইন নামের এক মেম্বার প্রার্থী টাকার বস্তা নিয়ে মাঠে নেমেছেন।

তিনি ভোটার প্রতি পাঁচশত থেকে দেড় হাজার টাকা পর্যন্ত বিলি করছেন। ৬ নং ওয়ার্ডে তিতা মাঝির পাড়ায় ভোটারদের সমর্থন ভোট আদায় করতে কন্ট্রাক্ট করা হচ্ছে। পাশাপাশি ভোটারদের ভয় ভীতিও দেখানো হচ্ছে।

জানা গেছে, দায় -দেনা, ধার কর্জ করে মানুষের সমর্থন নিয়ে জনপ্রিয়তার র্শীষে থাকা দরিদ্র প্রার্থীরা অর্থশালীদের টাকার প্রভাবে অসহায় হয়ে পড়েছেন। এ ধরনের একটি বিষয় দেখা গেছে গত শুক্রবার বিকাল ৫ টার দিকে মাতারবাড়ী ৬ নং ওয়ার্ডের তিতা মাঝি পাড়া এলাকায়।

তালা প্রতীকের ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী বিদেশ প্রবাসী মো: জাকের হোসেন তার কর্মী-সমর্থক নিয়ে ভোটার প্রতি ৫ শত থেকে দেড় হাজার টাকা এবং শাড়ী, লুঙ্গি, থ্রি-পিজ দিচ্ছেন।

অনুসন্ধান করে দেখা গেছে, এবারে মাতারবাড়ী নির্বাচনে অনেক বিদেশ প্রবাসী লোক মেম্বার প্রার্থী হওয়ায় তাঁরা কাড়ি কাড়ি টাকা বিতরণ করছেন।

আচারণবিধি ভঙ্গ করে বিদেশ প্রবাসী জাকের হোসেনও ভোটারদের মাঝে লক্ষ লক্ষ টাকা বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন। স্থানীয় ভোটারেরা বলেন, কক্সবাজার শহরের আলীর জাহাল এলাকায় ৮ম তলা একটি বিলাশ বহুল আলিশান বাড়ী ও অর্ধ কোটি টাকা দামের গাড়ী রয়েছে। তিনি এলাকার অর্ধ শত চিহ্নিত মাদকসেবি ও ক্যাডারদের নিয়ে নিরহ ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি ধমকি দিচ্ছেন। এ খবর ওই ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার প্রার্থীদের মাঝে জানাজানি হলে ক্ষোভ ও বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। ওই ওয়ার্ডের অন্য প্রার্থীরা জানিয়েছেন, ভোটারদের টাকা দেওয়া আচারণবিধির স্পষ্ট লঙ্গন। জাকের হোসেনও আচরণবিধি লঙ্গন করেছেন।

জানতে চাইলে মাতারবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ির আইসি আবদুল মালেক আমাদের রামুকে বলেন, মেম্বার প্রার্থী জাকের হোসেন (তালা প্রতীক) ভোটারদের মধ্যে টাকা বিতরণ করে থাকলে খবর নিয়ে সংশ্লিষ্ট আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মহেশখালী উপজেলা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নিবার্হী অফিসার মোঃ আবুল কালাম আমাদের রামুকে বলেন, মাতারবাড়ীতে মেম্বার প্রার্থী জাকের হোসেন টাকা বিতরণের ব্যাপারে আমাকে কেউ অভিযোগ করেনি। তবে খোঁজ নিয়ে প্রমাণ পেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।