পেকুয়ায় ইউপি নির্বাচন- সরে দাঁড়ালেন আওয়ামীলীগ ও বিএনপির চার ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী

নিজস্ব প্রতিনিধি, পেকুয়া।
কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার সাত ইউপি নির্বাচনে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির চার ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী সরে দাঁড়িয়েছেন।

এ ছাড়া সংরক্ষিত নারী পদের দুইজন ও সাধারণ সদস্য পদের ১৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। তবে রাজাখালী ইউনিয়নের কোনো প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। এ ইউপিতে আওয়ামীলীগ ও বিএনপিতে বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছে।

রোববার পেকুয়ার সাত ইউপি নির্বাচনের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল।

পেকুয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সাখাওয়াত হোসেন আমাদের রামুকে বলেন, পেকুয়া সদর ইউপিতে আওয়ামীলীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী পেকুয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এছাড়া ১ নম্বর ওয়ার্ডের আমিনুর রহমান ও ১, ২, ৩ নম্বর ওয়ার্ডের নারী সদস্যপ্রার্থী ফেরদৌস জাহান ফরিদা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।

উজানটিয়া ইউপিতে আওয়ামীলীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি তোফাজ্জল করিম মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এ ছাড়া সদস্য পদে ৩ নম্বর ওয়ার্ডের শরিয়ত উল্লাহ, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মো. রাশেদ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের নুরুল হুদা আকতার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।

মগনামা ইউপিতে সদস্য পদপ্রার্থী ২ নম্বর ওয়ার্ডের নুরুল আবছার, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে নুরুল ইসলাম, ৬ নম্বর ওয়ার্ডে মো. ওয়াহিদুল ইসলাম ও ৭ নম্বর ওয়ার্ডের নুরুল হুদা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

শিলখালী, বারবাকিয়া ও টৈটং ইউপির দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এএইচএম মনিরুজ্জামান রব্বানীে আমাদের রামুকে বলেন, শিলখালী ইউপিতে বিএনপির ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী আবদুর রশিদ মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এছাড়া চেয়ারম্যান পদের স্বতন্ত্র প্রার্থী শামশুল আলম ও ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদপ্রার্থী ছৈয়দুল আলমও মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।

বারবাকিয়া ইউপিতে বিএনপির ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী শাকিল সিকদার মনোয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। ওই ইউপিতে ৭, ৮, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী সদস্য প্রার্থী জান্নাতুল তাহমিনা ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদপ্রার্থী বেলাল উদ্দিন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।

টৈটং ইউপিতে ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদপ্রার্থী আবদুর রহিম, ২ নম্বর ওয়ার্ডের মো. আলমগীর, বদিউল আলম ও নুর মোহাম্মদ, ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বেলাল উদ্দিন এবং ৯ নম্বর ওয়ার্ডের নুরুল আবছার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

এদিকে টৈটং ইউপিতে আওয়ামীলীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মো. শহিদুল্লাহ ও রাজাখালী ইউপিতে আওয়ামীলীগ সমর্থক ছৈয়দ নুর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি।

এছাড়া রাজাখালী ইউপিতে বিএনপির ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী ও উপজেলা বিএনপির সদস্য নুরুল আবছার ওরফে বদু এবং পেকুয়া সদরে বিএনপি সমর্থক শাহ আলম মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। এনিয়ে দুইদলের কর্মী সমর্থকেরা দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছেন।

পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম ও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোছাইন বলেন, দলের প্রার্থীর বাইরে অন্য কেউ ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী থাকলে তাঁদের বহিস্কার করা হবে।