রামুতে সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা মাঠ দিবসে বক্তারা – সরকার কীটনাশকের পরিবর্তে পরিবেশবান্ধব কৃষি ও নিরাপদ খাদ্য উদপাদনে গুরুত্ব দিচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, রামু।
কক্সবাজারের রামু উপজেলায় সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা (আইপিএম) কৌশলের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উদপাদন প্রকল্পের আওতায় কৃষকদের মাঠ দিবস পালিত হয়েছে।

গত বুধবার ২ মার্চ সকাল ১১ টায় রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের লম্বরীপাড়া এলাকায় আয়োজিত মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, কক্সবাজার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা মো. শহীদুল ইসলাম খান।

তিনি বলেন, সরকার ক্ষতিকর কীটনাশকের পরিবর্তে পরিবেশ বান্ধব কৃষি এবং নিরাপদ খাদ্য উদপাদনে গুরুত্ব দিচ্ছে। এজন্য কৃষকদের সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা (আইপিএম) কৌশল সম্পর্কে সচেতন করার কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে। এর ফলে মানুষের খাদ্যমান নিশ্চিত হচ্ছে এবং ফসল উদপাদনও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

রামু উপজেলা উপ সহকারি কৃষি কর্মকর্তা ছোটন কান্তি দে’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, স্থানীয় কৃষক হাজ্বী আনু মিয়া।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, রামু উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু মাসুদ সিদ্দিকী, সহকারি কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ, সহকারি উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা ফিরোজ আলম, উপজেলা উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন ও রামু প্রেস ক্লাবের অর্থ সম্পাদক সোয়েব সাঈদ।

এতে স্থানীয় কৃষকদের মধ্যে মামুনুর রশিদ ও খুরশিদা আকতার বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন, বাদশা মিয়া।

অনুষ্ঠানে ফরিদুল আলম, আবুল কালাম, মুজিবুর রহমান, ফয়েজ আহমদ, আহমেদুল হক, তাজুল হক, জাহান আরা, রোজিনা বেগম সহ শতাতিক কৃষক উপস্থিত ছিলেন।

পরে অতিথি বৃন্দ চাষী পর্যায়ে ক্ষতিকর কীটনাশক এর পরিবর্তে পরিবশেবান্ধব কৃষি এবং নিরাপদ খাদ্য উদপাদনে সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা (আইপিএম) কৌশলের মাধ্যমে ফসল উদপাদন প্রক্রিয়া, আইপিএম স্কুলের কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।

p copy

অনুষ্ঠানে উপকারি তথা বন্ধু পোঁকা বাঁচিয়ে রাখা এবং শত্রুপোঁকা নিধনের বিভিন্ন কৌশল সম্পর্কে অবহিত হওয়া রামুর শতাধিক কৃষক বিষমুক্ত, নিরাপদ ফসল উদ্পাদনের অঙ্গীকার করেন।

স্থানীয় কৃষক ফরিদুল আলম জানান, এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এলাকার কৃষক সহ সর্বস্তুরের মানুষ বিষমুক্ত ও নিরাপদ খাদ্য উদপাদন সম্পর্কে জানার সুযোগ পেয়েছে।
এটি সরকারের একটি সময়োপযোগি প্রদক্ষেপ।