সৌদিতে বাংলাদেশি কর্মীরা বিপদে পড়লে থাকতে পারবেন গেস্ট হাউসে

সৌদি আরবে বাংলাদেশি কর্মীদের সুরক্ষায় বিভিন্ন মহল্লায় গেস্ট হাউস তৈরি করা হয়েছে। দেশটিতে অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীরা কোনও প্রকার সমস্যায় পড়লে এসব গেস্ট হাউসে ১৫ দিন পর্যন্ত থাকতে পারবেন। পরে সংশ্লিষ্ট কর্মীর মালিকের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে সমস্যার সমাধান করা হবে। রবিবার প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলামের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে এসব তথ্য জানান সৌদি আরবের ডেপুটি মিনিস্টার অব কাস্টমার রিলেশনস, মিনিস্ট্রি অব লেবার অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট আদনান আব্দুল্লাহ আলনুআইম। খবর বাংলা ট্রিবিউনের।

রবিবার দুপুর ২টায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে এ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে তারা সৌদিতে কর্মী পাঠানোর ক্ষেত্রে স্বার্থ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয়ে আলোচনা করেন। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ খবর জানানো হয়েছে।

বৈঠকের শুরুতেই প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বাংলাদেশ থেকে সব সেক্টরে অধিক পরিমাণ কর্মী নেওয়ার জন্য সৌদি সরকারকে ধন্যবাদ জানান। বিশেষ করে বিভিন্ন সেক্টরে দক্ষ কর্মী নেওয়ার ব্যাপারে তিনি সৌদি আরবের প্রতি অনুরোধ জানান। বৈঠকে বাংলাদেশি কর্মীদের নানাবিধ সমস্যা এবং তা সমাধানের বিষয়ে আলোচনা হয়। বিশেষ করে ভিসা ইস্যু বিলম্বিত হওয়া, ভিসা ট্রেডিং বন্ধ, কর্মীদের মৃতদেহ বিলম্বে দেশে আসা এবং মৃত কর্মীদের ক্ষতিপূরণ পাওয়ার নিশ্চয়তাসহ বিভিন্ন বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়।

আলোচনাকালে সৌদি উপমন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবে অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীদের যেসব সমস্যা রয়েছে তা সমাধানে তার দেশ কাজ করছে। কর্মীরা নতুন করে কোনও মালিকের অধীনে কর্মসংস্থান নিয়ে যেতে পারবে। অভিবাসন খরচ কমানোর জন্য ভিসা ট্রেডিং বন্ধ করতে হবে। ভিসা ট্রেডিং-এর সঙ্গে কোনও সৌদিবাসী যুক্ত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সৌদি আরবে অবস্থানরত কোনও কর্মীর মৃত্যু হলে তার মৃতদেহ দেশে ফেরত আনা এবং মৃত ব্যক্তির ক্ষতিপূরণ বাবদ পাওনা দ্রুত পরিশোধ নিশ্চিত করা হবে।

এ সময় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব বেগম শামছুন নাহার, অতিরিক্ত সচিব জাবেদ আহমেদ, জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক মো. সেলিম রেজা, ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড এর মহাপরিচালক গাজী মোহাম্মদ জুলহাস, মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব নারায়ন চন্দ্র বর্মা, যুগ্ম সচিব মো. বদরুল আরেফিন, মন্ত্রীর একান্ত সচিব মোহসিন চৌধুরী, যুগ্ম সচিব মোশাররফ হোসেন এবং উপসচিব আবুল হাসনাত হুমায়ুন কবির উপস্থিত ছিলেন।