অ্যামাজন থেকে যেসব পণ্য কিনবেন না

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন শপিং সাইট অ্যামাজন। অ্যামাজনে যদি আপনার প্রাইম মেম্বারশিপ থাকে তাহলে আপনি খুব সহজেই এখান থেকে যে কোনো ধরনের পন্য কিনতে পারবেন।

আপনার কি একটা বই দরকার? নাকি একটা হেডফোন অথবা টি-শার্ট অথবা শ্যাম্পু দরকার? যেকোনো ধরনের পণ্যই অ্যামাজন থেকে খুব সহজেই কিনে নিতে পারেন।

দারুন ব্যাপার হলো এখানে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় সকল ধরনের জিনিস পাওয়া যাবে। যা খুব সহজেই আপনি কিনে নিতে পারবেন এখান থেকে।

কিন্তু কিছু জিনিস আছে যা অ্যামাজন থেকে কেনা একদমই উচিত না। যেমন জামাকাপড়, পোষা প্রাণির খাবার, স্কুলের উপকরণ। এখানে এগুলো ভালো পাওয়া যাবে না। অনেক সময় আপনি আসল ও নকলের মধ্যে তফাত বুঝতে পারবেন না।

বিজনেস ইনসাইডারের প্রতিবেদন অনুসারে চলুন জেনে নিন, কোন কোন জিনিস অ্যামাজন থেকে কিনলে আপনি ঠকতে পারেন।

অ্যাপলের চার্জার অথবা ক্যাবল

নাইন টু ফাইভ ম্যাকের প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অ্যামাজনে অ্যাপল পণ্যের যেসব চার্জার বা ক্যাবল বিক্রি হয় তার ৯০ শতাংশের বেশি নকল কিন্তু এখানে সেটি আসল বলে চালিয়ে দেওয়া হয়। এটি শুধুমাত্র থার্ড পার্টির মাধ্যমে বিক্রির সময় হয় তা নয়, অ্যামাজন সরাসরি যেসব অ্যাপলের চার্জার ও ক্যাবল বিক্রি করে, সেক্ষেত্রেও একই ঘটনা। এর ফলে শুধুমাত্র মানুষকে ঠকানো হচ্ছে তা নয় বরং এর মাধ্যমে মানুষ এমন জিনিস কিনছে যা ব্যবহারের ফলে দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে। তাই ভবিষ্যতে এগুলো কেনার সময় অবশ্যই অ্যামাজনকে এড়িয়ে চলুন।

ব্যাটারি

বিভিন্ন ধরনের গ্যাজেটের ক্ষেত্রে ব্যাটারি খুবই গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু এটা অ্যামাজন থেকে কেনা উচিত হবে না। আপনি যদি আপনার আশেপাশের ব্যাটারির দোকান থেকে ব্যাটারি কেনেন তবে অ্যামাজনের তুলনায় কম দামে ব্যাটারি পাবেন। এটা এখান থেকে ব্যাটারি না কেনার একটি বড় কারণ। এছাড়া আরো একটি কারণ হল, অ্যামাজনে আপনি যে ব্যাটারি পাবেন তার কোয়ালিটি খুবই খারাপ। খুব কম খরচে কোনো রকম করে এগুলো তৈরি করা হয়। এ ধরনের ব্যাটারিতে অতি সহজেই আগুন ধরে যেতে পারে অথবা বিস্ফোরিত হতে পারে। যার ফলে শুধু যে আপনার ডিভাইসটি ক্ষতিগ্রস্ত হবে তা নয়, আপনার জীবনের ঝুঁকি রয়েছে এতে।

নকল গ্যাজেট

অ্যামাজনে নকল আইফোন সহ বিভিন্ন ধরনের নকল গ্যাজেট বিক্রি হয়। আমরা মনে করি শুধু চার্জার বা হেডফোন এই জাতীয় পণ্য নকল হয় কিন্তু মোবাইল বা কম্পিউটার সহ অন্যান্য গ্যাজেট ও নকল হতে পারে। অ্যামাজনের ৪০% পণ্যই আসে লোকাল মার্কেট থেকে যেখানে অহরহ নকল জিনিস বিক্রি হয়। তাই এ ধরনের পণ্য এখান থেকে না কেনাটাই ভালো। এখান থেকে নকল জিনিস পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

খুব দামি পণ্য

কিছু রিপোর্টে দেখা গেছে যে, যখন আপনি খুব দামি কোনো পণ্য কিনছেন তখন অ্যামাজন সেগুলোর ক্ষেত্রে সবসময় সঠিক জায়গা না। যখন আপনি এমন কোনো জিনিস কিনছেন যেমন কম্পিউটার বা টেলিভিশন তখন অবশ্যই আপনার উচিত ভালো মতো যাচাই-বাছাই করে দেখা যে, আপনি সঠিক পণ্যটি পাচ্ছেন কি না। সেভিংস ডটকমের গবেষণায় বলা হয়েছে, অ্যামাজনের তুলনায় অন্য যেকোনো দোকানে ইলেকট্রনিক্স পণ্যের দাম ৫৮% কম। তাই এসব পণ্য অ্যামাজন থেকে না কেনাই ভালো।

অত্যন্ত কম দামি ডিভাইস

আপনি ভাবতে পারেন অ্যামাজন থেকে খুব দামি জিনিস না কিনে কম দামি কোনো গ্যাজেট কেনার কথা কিন্তু এক্ষেত্রেও কম বাজেটের জিনিস অ্যামাজন থেকে কেনা ঠিক হবে না। যখন আপনি কম দামে একটি স্মার্টফোন কিনতে চান বা একটি এমপিথ্রি প্লেয়ার কিনতে চান তখন আপনাকে এ সম্পর্কে প্রথমে জানতে হবে। তা নাহলে আপনি এমন কিছু কিনে ফেলতে পারেন যা আসলে কোনো কাজেরই না। তাই এ ধরনের পণ্য অ্যামাজন থেকে কেনার আগে এ সম্পর্কে ভালোভাবে জেনে নিন।

ফটোগ্রাফির উপকরণ

অ্যামাজন প্রায়ই ক্যামেরার লেন্স অথবা ক্যামেরার বডির ভালো অফার দেয়। কিন্তু আপনি সত্যিই যদি সেরা পণ্যটি কিনতে চান তাহলে জেনে রাখা ভালো যে, ফটোগ্রাফির উপকরণের জন্য অ্যামাজন সঠিক প্লাটফর্ম নয়। এখানে অন্যান্য প্লাটফর্মের তুলনায় বেশি দামে এগুলো বিক্রি হয়। তাছাড়া কম দামে পেলেও তার কোয়ালিটি নিয়ে সন্দেহ থেকেই যায়। তাই এ ধরনের জিনিস এখান থেকে না কেনাটাই ভালো।

তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি।