ফিদেল কাস্ত্রোকে ৬৩৮ বার হত্যার চেষ্টা করা হয়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
প্রবল পরাক্রমশালী সাম্রাজ্যবাদী পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্রের চোখের সামনে সাম্যবাদী সমাজ প্রতিষ্ঠা করেন কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল কাস্ত্রো। ১৯৪৭ সালে রাজনীতিতে যোগ দেওয়া ফিদেল মূলত ১৯৫৩ সালে সরকারবিরোধী আক্রমণের মধ্য দিয়ে বিপ্লব শুরু করেন। ফিদেলের নেতৃত্বাধীন বিপ্লবে ১৯৫৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রপন্থি একনায়ক জেনারেল বাতিস্তাকে ক্ষমতাচ্যুত হন এবং সে বছর কিউবার প্রধানমন্ত্রী হন ফিদেল।

ফিদেলের বিপ্লব সফল হলেও তার পিছু ছাড়েনি যুক্তরাষ্ট্র। নাকের ডগায় কমিউনিস্ট রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা কখনো মেনে নিতে পারেনি মার্কিন নেতারা। ফিদেলকে হত্যার জন্য বারবার চেষ্টা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিআইএ)। ১৯৫৯ থেকে ১৯৬৩ সাল পর্যন্ত সবচেয়ে বেশিবার তাকে হত্যার চেষ্টা করে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু তাদের সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়।

কখনো চুরুটে আবার কখনো ঝিনুকের মধ্যে বিস্ফোরক দিয়ে ফিদেলকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। নিউ ইয়র্কের এক পুলিশ কর্মকর্তার কাছ থেকে চুরুটে বিস্ফোরক দিয়ে তাকে হত্যার পরিকল্পনা গ্রহণ করে সিআইএ। চুরুটের মধ্যে যে বিস্ফোরক রাখা যেত, তা দিয়ে ফিদেলের মাথা উড়িয়ে দেওয়া সম্ভব ছিল। কিন্তু সে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারেনি তারা।

২০০০ সালে বড় ধনের হত্যা পরিকল্পনা থেকে বেঁচে যান ফিদেল। এ বছর পানামা সফরে গেলে সেখানে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়। একটি বক্তৃতা মঞ্চের ডেস্কে ৯০ কেজি বিস্ফোরক রাখা হয়। কিন্তু কাস্ত্রোর নিরাপত্তাকর্মীরা সেই অপচেষ্টা রুখে দেন।

কিউবার শাসন ক্ষমতা তাকে উৎখাতে যুক্তরাষ্ট্র ‘অপারেশন মঙ্গুজ’ পরিকল্পনা গ্রহণ করে। কিন্তু তাদের সেই পরিকল্পনা শেষ পর্যন্ত ব্যর্থতায় পর্যবশিত হয়।

ফিদেলের একান্ত নিরাপত্তারক্ষী ছিলেন ফেবিয়ান এসকালান্তে। ৪৯ বছরের শাসনামলে এই এসকালান্তেই ছিলেন তার নিরাপত্তার দায়িত্বে। তার দেওয়া তথ্যমতে, শুধু সিআইএ ফিদেলকে ৬৩৮ বার হত্যার চেষ্টা করে। এসব চেষ্টার প্রতিটিই ছিল অভিনব।

ফিদেলকে হত্যার চেষ্টার ওপর যুক্তরাজ্যের চ্যানেল ফোর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র ২০০৬ সালে প্রচারিত হয়। ‘সিক্স হান্ড্রেড অ্যান্ড থার্টি এইট ওয়েজ টু কিল কাস্ত্রো’ শীর্ষক প্রামাণ্যচিত্রটিতে দেখানো হয়েছে তাকে কতভাবে মারার চেষ্টা করা হয়েছে।

কাস্ত্রোকে হত্যার পরিকল্পনা হিসেবে একবার তার জুতা ও চুরুটের মধ্যে রাসায়নিকদ্রব্য রাখা হয়। এ ছাড়া বিভিন্ন সময়ে তার খাবারেও বিষ মাখিয়ে রাখা হয়। কলমের কালিতে বিষ মাখিয়েও তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়।

ফিদেলকে মারার ষড়যন্ত্রের পাশাপাশি তার সুনাম নষ্টেরও চেষ্টা চালায় সিআইএ। একবার রেডিওতে ভাষণ দেওয়ার সময় বেতারকেন্দ্রে নেশাজাতীয়দ্রব্য ছড়িয়ে দেয় সিআইএ। এর প্রভাবে অস্বাভাবিক আচরণ করেন তিনি। এতে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে কিউবার লোকজন। এ ছাড়া এক সাবেক মন্ত্রী মিরতার মাধ্যমে ফিদেলকে হত্যার ষড়যন্ত্র করে সিআইএ। কোল্ডক্রিমের কৌটায় রাখা বিষযুক্ত ক্যাপসুল দিয়ে তাকে মারার চেষ্টা করা হয়। এ ফন্দি বুঝে ফেলেন ফিদেল। তিনি মিরতার হাতে পিস্তল দিয়ে বলেন, ক্যাপসুল নয়, পিস্তল দিয়ে গুলি করে তাকে হত্যা করতে। কিন্তু একসময়ের বিশ্বস্ত মিরতার হাত চলেনি।
সূত্র: রাইজিংবিডি।