সাঁওতাল উচ্ছেদ: ঘটনা তদন্তে যাবে আ. লীগের প্রতিনিধি দল

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে চিনিকলের অধিগ্রহণ করা জমি থেকে সাঁওতালদের উচ্ছেদের সময় হামলার ঘটনা তদন্তে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবে।
রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এ তথ্য জানান।খবর বিডিনিউজের।

গত ৬ নভেম্বর গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রংপুর চিনিকলের জমির দখলকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও চিনিকল শ্রমিক কর্মচারিদের সঙ্গে সাঁওতালদের সংঘর্ষের ঘটনায় এ পর্যন্ত তিন সাঁওতালের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

পুলিশের সহযোগিতায় স্থানীয় সাংসদ আবুল কালাম আজাদ ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাকিল আলম বুলবুলের নেতৃত্বে সাঁওতালদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ ও হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে বলে মানবাধিকার ও আদিবাসী সংগঠনগুলোর অভিযোগ।

মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, “ওখানে আমাদের পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল যাবে। ঘটনাটি জেনেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। তার পক্ষ থেকে তদন্তের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

“এছাড়া রোববার আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিদলও ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজখবর নেবে।

দলের রংপুর বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক টিপু মুন্সি, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী ও কার্যনির্বাহী সদস্য রেমণ্ড আরেং গোবিন্দগঞ্জ সফরের প্রতিনিধি দলে থাকবেন।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে হানিফ বলেন, “অনুমতি পেয়ে সমাবেশ না করা বিএনপির নতুন কোনো ষড়যন্ত্রের অংশ বলে আমরা মনে করছি।

“বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দাবি করেছেন, তারা সমাবেশের জন্য ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউশন ব্যহারের অনুমতি কখনোই চাননি। এটা একটা জঘন্য মিথ্যা কথা আমাদের কাছে তাদের করা দরখাস্ত আছে।”

এ সময় বিএনপির অফিসিয়াল প্যাডে করা আবেদনের একটি কপি সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।